বুধবার,২৬শে জুলাই, ২০১৭ ইং,১১ই শ্রাবণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: দুপুর ২:৫২

এমপিওভুক্ত হচ্ছেন ১৩১৮ শিক্ষক-কর্মচারী যে ৫টি বিষয় সহকর্মীদের কাছে প্রকাশ করবেন না ই-মেইল লেখার ক্ষেত্রে যে বিষয়গুলি খেয়াল রাখা দরকার ফিজ আরো ভালো হয়ে ফিরে আসবে : ওয়ালশ ভয়ংকর সুন্দর নিয়ে যা বললেন জয়া আহসান ফকিরহাটে অবিরাম বৃষ্টিতে অনেক বাড়ি, সড়ক ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এখন পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে সিপিডিতে রিসার্চ অ্যাসোসিয়েট পদে নিয়োগ

মেয়ের বাবা সহ ৩ জনের কারাদন্ড

লালপুরে ইউএনও’র হস্তেেপ বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা  পেল ৪র্থ শ্রেণীর ছাত্রী 

download-1মো. আশিকুর রহমান (টুটুল),নাটোর জেলা প্রতিনিধি
নাটোরের লালপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হস্তেেপ বাল্য বিয়ের হাত থেকে রা পেয়েছে উপজেলার মাঝগ্রাম ধনুরমোড় এবতেদায়ী মাদ্রাসার ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রী সুমা খাতুন (১১)। এ ঘটনায় শনিবার মেয়ের বাবা শাহাদত হোসেন, বরের চাচাত দুলাভাই মুক্তা হোসেন (২৫) ও বরযাত্রি আবু তাহের শেখকে (৬৫) ১মাস করে বিনাশ্রম কারাদন্ডাদেশ দিয়েছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার নজরুল ইসলামের ভ্রম্যমাণ আদালত।
জানা গেছে, শুক্রবার টাঙ্গাইল জেলার ভূঁয়াপুর উপজেলার বামনহাটা গ্রামের হিকেম আলীর ছেলে নূর হোসেন (২০) তার চাচাত দুলাভাই মুক্তার হোসেন সহ ৮/৯ জন বরযাত্রী নিয়ে লালপুর উপজেলার মাঝগ্রাম পশ্চিমপাড়া গ্রামের শাহাদত হোসেনের ৪র্থ শ্রেণি পড়–য়া সুমা খাতুনকে বিয়ের জন্য তার বাড়িতে আসে। প্রতিবেশীরা টের পেয়ে বিষয়টি লালপুর উপজেলা নির্বাহী আফিসার নজরুল ইসলামকে জানান। তিনি স্থানীয় দুয়ারিয়া ইউপি চেয়ারম্যান নরুল হোসেন লাভলুর সহযোগীতায় বরের দুলাভাই মুক্তার হোসেন, বরযাত্রী আবু তাহের শেখ, মেয়ে সুমি খাতুন ও তার বাবা শাহাদত হোসেনকে উপজেলা পরিষদে নিয়ে আসেন। এসময় বর নূর হোসেন সহ আন্যরা পালিয়ে যায়।
সুমি খাতুনকে তার চাচা সাধু শেখ ও স্থানীয় ইউপি সদস্য ইকরামুল ইসলামের জিম্মায় রাখা হয়।

আপনার মতামত লিখুন

ঢাকা,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ