রবিবার,১৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং,৬ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ৩:১৪
খুলনায় পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগে আটক ৯ দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী লালমনিরহাটে প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে শিক্ষক আটক লালমনিরহাট ইজতেমার আখেরি মুনাজাতে লক্ষাধীক ধর্মপ্রাণ মানুষের ঢল আজ মহানায়ক মান্নার দশম মৃত্যুবার্ষিকী অনার্স ৪র্থ বর্ষের ফলাফল প্রকাশ ‘বাঁচাও বাঁচাও’ বলছিলাম, কারণ আমি ডুবে যাচ্ছিলাম!

লবণের ক্ষতিকর দিক

salt_binodon69মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেক্স: লবণ ছাড়া তরকারী কল্পনাই করা যায় না। বেশি দিলে একটু কষ্ট করে হলেও খাওয়া যায় তবে একেবারেই না দিলে বা কম দিলে সেই তরকারি খাওয়া খুব কষ্টদায়ক। আসলে মানুষের জিভের স্বাদের প্রাথমিক অংশই লবণের। তবে এটার কিছু ক্ষতিকর দিক আছে। জেনে নিন লবণ স্বাস্থ্যের যেসব ক্ষতি কর-

লবণ খেলে যেসব ক্ষতি হয়:

– অতিরিক্ত পরিমাণ লবণ খাওয়ার ফলে সারা বিশ্বে হৃদ রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়েন বহু মানুষ।

– এছাড়া উচ্চ রক্তচাপ বাড়িয়ে দেয় স্ট্রোক, হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা। লবণে সোডিয়াম থাকে আর এই সোডিয়াম হল আমাদের দেহের একটা বড় শত্রু। এটা রক্তে তরল পদার্থের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়, ফলে রক্ত চাপ বেড়ে যাওয়ায় এ ধরনের রোগ দেখা দেয়।

– বিভিন্ন খাবারে মিশে থাকা লবণকে পরিপাক করা কিডনির গুরুত্বপূর্ণ কাজ। রান্না করা বা প্যাকেটজাত খাবারে ব্যবহার করা লবণ আমাদের শরীরে সোডিয়ামের বড় উৎস। আমরা যখন বেশি বেশি লবণ খাই, তখন এই সোডিয়াম প্রক্রিয়াজাত করা নিয়ে কিডনিকে অনেক বেশি ব্যস্ত থাকতে হয়। এতে কিডনির ওপর প্রবল চাপ পড়ে এবং কিডনির সমস্যা দেখা দেয়।

– চিকিৎসকদের মতে, যারা ৫১ বছর বা তার বেশী বয়সীদেরকে ১৫০০ মি.গ্রামের বেশি লবন খাওয়া একেবারেই উচিত নয়। এছাড়া ছোট-বড় কারোরই কাচা লবণ খাওয়া ঠিক নয়।

– সম্প্রতি এক গবেষণার রিপোর্ট অনুযায়ী পৃথিবীতে প্রত্যেক বছর ১৬ লক্ষেরও বেশি মানুষ মারা যান শরীরে অতিরিক্ত সোডিয়াম জমা হওয়ার ফলে। পাউরুটি, রোল, পিৎজা, চিকেন ফ্রাই, পনীরের বার্গার বা স্যান্ডউইচ,পাসতা, আলু চিপস, পপকর্ন ইত্যাদি খাবারে সোডিয়াম তথা লবণ বেশি থাকে।

– বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্ধারিত পরিমাণ অনুযায়ী, দিনে দুই গ্রামের বেশি লবণ খাওয়া উচিৎ নয়। গবেষকরা ১৮৭টি দেশের সাধারণ মানুষের উপর পরীক্ষা চালিয়েছেন।

আপনার মতামত লিখুন

লাইফস্টাইল বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ