মঙ্গলবার,১৬ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং,১লা কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সময়: দুপুর ২:৪৮
পারিশ্রমিক–বৈষম্য নিয়ে মুখ খুললেন ক্লেয়ার ফয় মাইক্রোসফটের সহ-প্রতিষ্ঠাতা পল অ্যালেন আর নেই আজ মহাসপ্তমীতে হবে দেবী দুর্গার চক্ষুদান স্পেনের ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের জয় ইসলামে খাদ্যে ভেজালের পরিণতি ব্লকচেইন প্রযুক্তি স্মার্টফোন আনছে এইচটিসি মেসেঞ্জারে আসছে আনসেন্ড অপশন

ব্যবসাবান্ধব বাজেটের আশ্বাস অর্থমন্ত্রীর

6 months ago , বিভাগ : অর্থনীতি,

ঢাকা : দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের লক্ষ্যে ব্যবসাবান্ধব বাজেট প্রণয়নের আশ্বাস দিয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেছেন, দেশের অবকাঠামোগত উন্নয়নে কৃষি খাত অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই খাতকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হবে। ১০ বছরে বাংলাদেশ অনেক এগিয়েছে। দশ বছর পূর্বে ব্যবসায়ীরা যে সমস্ত সমস্যার সম্মুখীন হতেন সেগুলো অনেকাংশেই কমে এসেছে। ১০ বছর পূর্বে এনবিআর এর ট্যাক্সফেয়ারের পরিমাণ ছিল ১৪ লাখ টাকা। এখন তা উন্নীত হয়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় ৩০ লাখ টাকায়।

পাশাপাশি আগামী বাজেটে ই-কমার্সের শুল্ক ব্যবস্থা নিয়ে বিবেচনা করা হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। দেশীয় পণ্য সরাসরি রপ্তানিতে ইনসেনটিভ বাড়ানোর কথাও জানান তিনি। অর্থনৈতিক উন্নয়নে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি করা অত্যন্ত জরুরি সে ক্ষেত্রে সরকার নিরলস কাজ করছে। পাথর আমদানিতে বর্তমানে শুল্ক নির্ধারণ করা আছে ৬৯ শতাংশ। যেটি অন্যান্য খাতের সঙ্গে অসামঞ্জস্যপূর্ণ। আগামী বাজেটে বিষয়টি বিবেচনা করা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এনবিআর ও এফবিসিসিআই এর যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের পরামর্শক কমিটির ৩৯ তম আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এনবিআর চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন এফবিসিসিআই চেয়ারম্যান শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন।

এর আগে এফবিসিসিআই চেয়ারম্যান কিছু দাবি পেশ করেন। এরমধ্যে রপ্তানি উন্নয়ন, বহুমুখীকরণ ও রপ্তানি প্রণোদনা, ব্যাংকিং খাতে সুদের হার কমানো ক্ষুদ্র ও মাঝারি কুটির শিল্পের উন্নয়ন, সড়ক ও মহাসড়কে পরিবহন চলাচল সহজ করা, নারী উদ্যোক্তা উন্নয়ন, কৃষি উৎপাদন ও কৃষি বীমা প্রদান, পর্যটন শিল্পের বিকাশ, কর্পোরেট কর হার কমানো, আমদানি ক্ষেত্রে অগ্রিম আয়কর প্রত্যাহার, আয়কর অধ্যাদেশ ১২০ ধারার অধীনে ফাইল রি-ওপেন করা, এসআরও ৯৭/২০০০ অনুযায়ী পণ্য খালাসের ব্যবস্থা করা, নতুন ভ্যাট আইনের রেগুলেটরি ইম্প্যাক্ট এসেসমেন্ট নির্বাচন, ভ্যাট অনলাইন নিবন্ধন সম্পর্কিত বিধি চূড়ান্ত করার লক্ষ্যে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন কমিটি গঠনের প্রস্তাব পেশ করা হয়।

আপনার মতামত লিখুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ