মঙ্গলবার,১৯শে জুন, ২০১৮ ইং,৫ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সময়: বিকাল ৪:৪৭
“কুয়াকাটা সৈকতে জোয়ারে কান্না,ভাটায় হাসি” দিনাজপুরের চার উপজেলার কৃতি শিক্ষার্থীদের সংর্বধনা প্রদান ঈদের ছুটি কাটিয়ে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আবারও আমদানি-রপ্তানি শুরু ঠাকুরগাঁওয়ে বাস-ট্রাকের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ১৫ খানসামায় বিদ্যুৎ স্পষ্টে নিহত ১ সৈয়দপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ৯, আহত ১৫ গাজীপুরের উন্নয়নে হাজার হাজার কোটি টাকার বরাদ্দ আসছে

ভূমি-কৃষি-জলা সংস্কার রাজনৈতিক বিষয় দাবি ঢাবি অর্থনীতিবিদের

2 years ago , বিভাগ : শিক্ষা,

RU Pic 16.07.2016RU Pic 16.07.2016
RU Pic 16.07.2016
রাবি প্রতিনিধি:
ভূমি-কৃষি-জলা সংস্কার একটি রাজনৈতিক বিষয়। এ সংস্কারে আর্থ-রাজনৈতিক কাঠামোর প্রসঙ্গটি নিয়ামক ভূমিকা পালন করে। কারণ বিষয়টি আসলে উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় প্রান্তিক বঞ্চিতদের নিরন্তরভাবে অন্তর্ভুক্তিকেন্দ্রীক। কৃষি সংস্কারের সমগ্র বিষয়টি মুক্তি ও স্বাধীনতা চেতনায় সিক্ত সুদৃঢ় এক রাজনৈতিক অঙ্গীকারের বিষয়। বিষয়টি যেহেতু জ্ঞানভিত্তিক লড়াই-সংগ্রামের, সেহেতু কৃষি সংস্কার সংশ্লিষ্ট উন্নয়ন নীতি-কৌশল বিষয়ে দেশজ জ্ঞানতত্ত্ব বিনির্মাণ প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখা জরুরি।
শনিবর সকাল ৯ টায় কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ও বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির যৌথ উদ্যোগে দিনব্যাপী দেশের সপ্তম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা (২০১৬-২০) স্বপ্ন ও বাস্তবতা” শীর্ষক আঞ্চলিক সেমিনারের দ্বিতীয় অধিবেশনে এসব কথা বলেন বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সাবেক সভাপতি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. আবুল বারকাত।

তিনি বলেন, আদিবাসী মানুষের কাছে ভুমি ও বন মা তুল্য। তাদের সংস্কৃতি-কৃষ্টির ভিত্তিও ঐ ভুমি ও বন। বাংলাদেশ একক জাতি সত্ত্বার রাষ্ট্র নয়। এ দেশ সরকারি হিসেবে ১.২ শতাংশ মানুষ ২৭টি বিভিন্ন আদিবাসী গোষ্ঠি নিয়ে গঠিত। তাই দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে তাদেরকে সহযোদ্ধা হিসেবে পাশে রাখতে হবে।

মৎস্যজীবীদের দারিদ্রতার জন্য আইন সম্পর্কিত অধিকার দায়ী দাবি করে তিনি বলেন, বাংলাদেশের মৎসজীবিদের দারিদ্র ও প্রান্তিকতার প্রধান কারণ হলো জল-জলীয় আইনসংগত অধিকার থেকে তাদের বঞ্চিত করা। আইনগত ভাবেই জলমহল লিজ নেবার ক্ষেত্রে মৎস্যজীবীদের সমবায় অগ্রাধিকার পাওয়ার কথা। বাস্তব অবস্তা উল্ট। বৃত্তবান দুর্বৃত্তরা বিভিন্নধরনের দুর্নীতি-কারচুপির মাধ্যমে জলমহল লিজ নেন এবং লিজ গ্রহণ কারীর কাছথেকে আবার কমিশন নেন। এ অবস্থা চলতে থাকলে দরিদ্র মৎস্যজীবীর দারিদ্র্য হ্রাস অসম্ভব।

তিনি আরও বলেন, অন্যের দ্বারা এদের ভূ-সম্পত্তির জবর দখল যথেষ্ট বিস্তৃত। সমতলের সাঁওতালদের ভুমিহারা প্রক্রিয়া সমতলের বাঙালিদের চেয়ে জোর তালে চলে। সাঁওতালদের ৭২ শতাংশ এখন ভুমিহীন। আর পাহাড়ি আদিবাসী মানুষের অবস্থা আরও খারাপ।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের প্রাক্তন সভাপতি অধ্যাপক সনৎ কুমার সাহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ মিজানউদ্দিন, বিশেষ অতিথি উপ-উপাচার্য, প্রফেসর চৌধুরি সারওয়ার জাহান উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির ২০১৬ আহ্বায়ক ড. মো. মোয়াজ্জেম হোসেন খান, রাবি অর্থনীতি বিভাগের সভাপতি, ড. মোহাম্মদ আলী, বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সাধারণ সম্পাদক, ড. জামালউদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।
এই সেমিনারে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও পেশাজীবী সংস্থা থেকে শিক্ষক, অর্থনীতি ও পরিকল্পনাবিদ, গবেষক, শিার্থীসহ বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির কর্মকর্তাগণ অংশ নেন।

আপনার মতামত লিখুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ