বুধবার,১৮ই জুলাই, ২০১৮ ইং,৩রা শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সময়: বিকাল ৪:৩৭
দিনাজপুরে ৬ষ্ঠ জেলা কাব ক্যাম্পূরী-২০১৮ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিক্ষা বোর্ডের সচিব স্কাউট শিক্ষাই হচ্ছে পরিচ্ছন্ন জীবন হাবিপ্রবিতে জাতীয় বৃরোপন কর্মসূচি-২০১৮ পালিত ৩০ লক্ষ শহীদের স্বরনে দিনাজপুরে ৭৮ হাজার গাছের চারা বিতরণ ও রোপন কর্মসূচী সম্পন্ন কাল এইচএসসির ফল পার্বতীপুরে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষ্যে সংবাদ সম্মেলন হামলা হলেই প্রতিহতের ঘোষণা শিক্ষার্থীদের পার্বতীপুরে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষ্যে সংবাদ সম্মেলন

বড়পুকুরিয়া কয়লা উত্তোলন বন্ধ

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: পার্বতীপুরে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির উৎপাদনশীল ১২১০ নম্বর কোল ফেইসে উত্তোলনযোগ্য কয়লার মজুদ শেষ হয়ে যাওয়ায় ছয়দিন ধরে কয়লা উত্তোলন বন্ধ রয়েছে।

এরপর ১৩১৪ নম্বর ফেইস থেকে কয়লা উত্তোলন করা হবে। ১২১০ নম্বর ফেইসে ব্যবহৃত কয়লা উত্তোলনের যন্ত্রপাতি সরিয়ে ১৩১৪ নম্বর ফেইসে স্থাপন করে পুনরায় কয়লা উত্তোলনে যেতে দেড় থেকে দুই মাস সময় লাগবে বলে খনি সূত্রে জানা যায়।

বৃহস্পতিবার (২১ জুন) বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানি লিমিটেডের (বিসিএমসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রকৌশলী হাবিব উদ্দিন আহমেদ বাংলানিউজকে এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, খনির কয়লা উত্তোলন বন্ধের বিষয়টি একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। গত ১৫ জুন উৎপাদনশীল ১২১০ নম্বর কোল ফেইসে উত্তোলনযোগ্য কয়লার মজুদ শেষ হয়ে যায়। ফলে ১৬ জুন থেকে খনির উৎপাদন বন্ধ রয়েছে। একটি ফেইসের কয়লা উত্তোলন শেষ হলে ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি সরিয়ে নিয়ে নতুন ফেইসে স্থাপনের জন্য ৪০-৪৫ দিন সময় লাগে।

এছাড়া ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ক্রটিবিচ্যুতি ধরা পড়লে মেরামতের জন্য বাড়তি সময়ের প্রয়োজন হয়। এজন্য কয়লা উত্তোলন সাময়িক বন্ধ থাকে। সব প্রস্তুতি শেষ করে আগস্ট মাসের প্রথমার্ধে ১৩১৪ নম্বর ফেইস থেকে কয়লা উত্তোলন শুরু করা সম্ভব হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

২০ জুন পর্যন্ত খনির কোল ইয়ার্ডে এক লাখ ৮০ হাজার মেট্রিক টন কয়লা মজুদ ছিলো বলেও তিনি জানান।

আপনার মতামত লিখুন

রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ