শনিবার,২২শে জুলাই, ২০১৭ ইং,৭ই শ্রাবণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ১০:৫৬

পদত্যাগ করলেন হোয়াইট হাউজের প্রেস সেক্রেটারি সিন স্পাইসার আজ সকালে হজ ক্যাম্পের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী সুন্দরগঞ্জে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ নাটোরে জাতীয় শিক-কর্মচারী ঐক্য ফ্রন্টের মানববন্ধন ফকিরহাটে পৃথক অভিযানে গাজা সহ আটক-২ রাজধানীতে এপিবিএন-৫ এর অভিযানে বিপুল পরিমান ফেন্সিডিল, ইয়াবা উদ্ধারসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী আটক নাটোরে ট্রেনের ধাক্কায় বৃদ্ধের মৃত্যু

বিএনপি ক্ষমতায় এলে ২১ আগস্টের মতো হামলা হবে

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: বিএনপি ক্ষমতায় এলে আবার ২১ আগস্টের মতো হামলা হবে বলে আশঙ্কা করছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ না থাকলে ২০০১ সালের চেয়েও ভয়ংকর পরিস্থিতি হবে। তাই সময় থাকতে নেতা-কর্মীদের দূরত্ব ঘুচিয়ে আনতে হবে। গতকাল রোববার সকালে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

চট্টগ্রাম নগরের বাকলিয়ার একটি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এই সভায় নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সময় এখনো আছে, ঐক্যবদ্ধ হন। বিএনপি আমলের সেই দুঃসহ স্মৃতি যদি মনে থাকে তাহলে অনৈক্য করবেন না, কলহ করবেন না। বিভক্তির রাজনীতি ছেড়ে দিন। ঘরের মধ্যে ঘর করবেন না। মশারির মধ্যে মশারি খাটাবেন না। এই কাজটা করলে ক্ষতিটা আমাদেরই হবে।’

বিএনপি ক্ষমতায় থাকার সময় ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে আওয়ামী লীগের জনসভায় গ্রনেড হামলা চালায় জঙ্গিরা। শেখ হাসিনাকে হত্যা করে দলকে নেতৃত্বশূন্য করতে ওই হামলা চালানো হয়। সেদিন অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে যান তখনকান বিরোধীদলীয় নেত্রী এবং বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গ্রেনেড হামলায় নিহত হন ২২ জন।

গতকালের প্রতিনিধি সভায় ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির এখন প্রধান শত্রু আওয়ামী লীগ নয়। তাদের টার্গেট শেখ হাসিনা। শেখ হাসিনাকে হটাতে পারলেই বিএনপির শান্তি। বারবার তাঁকে হত্যার চক্রান্ত হয়েছে। এখনো চক্রান্ত চলছে। বিদেশে বসে হাসিনাকে এবং আওয়ামী লীগকে সরানোর চক্রান্ত সফল হবে না।

দক্ষিণ চট্টগ্রামের বিভিন্ন ওয়ার্ড, ইউনিয়ন পৌরসভা এবং উপজেলার ২ হাজার ২০০ প্রতিনিধি সভায় অংশ নেন। কিন্তু যাঁদের নিয়ে এই প্রতিনিধি সভা তাঁদের কেউ বক্তৃতা দেওয়ার সুযোগ পাননি। এ নিয়ে ওবায়দুল কাদের ও দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ সভায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন। আগামী সেপ্টেম্বরে তৃণমূল পর্যায়ের নেতাদের নিয়ে আবার বর্ধিত সভা করার পরামর্শ নেন এই দুই নেতা।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ, কেন্দ্রীয় দুই সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক ও মহিবুল হাসান চৌধুরী, উপপ্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, উপদপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, দক্ষিণ চট্টগ্রামের চার সাংসদ শামসুল হক চৌধুরী, নজরুল ইসলাম চৌধুরী, মোস্তাফিজুর চৌধুরী এবং আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামউদ্দিন নদভী।

আপনার মতামত লিখুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ