শনিবার,১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং,১লা পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১০:৫৯
নেতা নয়, সেবক হতে চাই: শেখ তন্ময় ভোটকক্ষে সাংবাদিকরা যা করতে পারবেন, যা পারবেন না ফখর উদ্দিন মোহাম্মদ স্বপনের শেরে-বাংলা পদক লাভ ঈশ্বরদীতে সড়ক দুর্ঘটনায় কিশোরের মৃত্যু মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য কলমাকান্দা ইউএনও’র অনন্য নজির জাতীয় স্মৃতিসৌধ প্রস্তুত, থাকবে চার স্তরের নিরাপত্তা বলয় ক্রিকেটে জয়ের ধারা অব্যাহত রাখার আশাবাদ প্রধানমন্ত্রীর

বাড়ি বাড়ি গিয়ে বিনা পয়সায় কুরআন শেখান যিনি

2 weeks ago , বিভাগ : ধর্ম,

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক:  ইসলামের নবী হযরত মোহাম্মদ (সা.) ঘোষণা দিয়েছিলেন, ‘তোমাদের মধ্যে সর্বোত্তম ব্যক্তি সে, যে কুরআন শেখে এবং অন্যকে শেখায়।’ এমনই একটি মহৎ কাজে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে নিজেকে নিয়োজিত করেছেন তুরস্কের এক বৃদ্ধ লোক।

লোকটি তার ব্যাগের ওপর কুরআন শিক্ষা কার্যক্রমের একটি ঘোষণাপত্র লিখে তুরস্কের রাস্তায় চলাফেরা করেন। তাতে তার মোবাইল নাম্বার ও লেখা রয়েছে।

তিনি তার ব্যাগের ওপর একটি বার্তা লিখে রাখেন- ‘প্রতিদিন ১০ মিনিট ব্যয় করলে আমি আপনাকে কুরআন শিক্ষা দিতে পারি। আপনি আমাকে যেখানে আসতে বলবেন, আমি সেখানে আসতে পারি, হতে পারে সেটা আপনার বাড়ি কিংবা অফিস। কুরআন সেখানোর জন্য আমি কোনো পারিশ্রমিক গ্রহণ করি না। আমি এটা শুধুমাত্র আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য করে থাকি।’

তুরস্কের এ বৃদ্ধ লোকের কাধে ঝুলানো ব্যাগ ও তার আহ্বানের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। ছবি দেখে যাতে লোকটিকে চিনতে পারে এবং ঘোষণা পত্রে লেখা রয়েছে মোবাইল নাম্বার; যার মাধ্যমে মানুষ তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারে।

প্রকৃতপক্ষে এ বৃদ্ধের কাজটি হাদিসের পরিভাষায় অনেক উত্তম কাজ। এ কাজে আল্লাহ তাআলা তাকে সর্বোত্তম প্রতিদান দেবেন।

বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর জন্য তিনি এক আদর্শ অনুপ্রেরণা। একজন মুসলমানের কি ধরনের কার্যক্রম হওয়া উচিত যার কিছু তিনি তার কাজের মাধ্যমে তুলে ধরেছেন।

বৃদ্ধার ভাষায়, ‘কোনো ব্যক্তি যদি কুরআন শিখতে চায়, সে তার বাড়ি কিংবা অফিসে গিয়েও কুরআন শেখাতে রাজি আছেন। কুরআন শেখানোর বিনিময়ে তিনি কোনো পারিশ্রমিক গ্রহণ করবেন না। যদি কেউ প্রতিদিন ১০ মিনিট করে সময় বের করে তাকে আহ্বান করেন, সে তাদের আহ্বানে সাড়া দেবে।’

যদিও লোকটির নাম ও ঠিকানা জানা যায়নি, কিন্তু তার লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য মহৎ। যা মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সে মহান ঘোষণারই অংশ।

সুতরাং বর্তমান সময়ে যারা পবিত্র কুরআনুল কারিম জানেন, তাদের জন্য তুরস্কের এ বৃদ্ধ ব্যক্তিটি হতে পারেন অনুপ্রেরণা। যাতে প্রতিটি কুরআন জানা লোক সমাজের কুরআনের শিক্ষা থেকে বঞ্চিত লোককে কুরআনুল কারিম শেখাতে পারে।সূত্র: কালের কন্ঠ

আপনার মতামত লিখুন

ধর্ম বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ