শুক্রবার,২৪শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং,১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ৪:২২
হবিগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩ ২০১৯ সালের মধ্যে ১শ’ কারিগরি স্কুল-কলেজ হচ্ছে পার্বতীপুরে মধ্যপাড়া পাথর খনির ২৫ শ্রমিক পুরস্কৃত আক্রোশের বলি কোমলমতি পরীার্থীরা হবিগঞ্জে মাইক্রোবাস মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ৩ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের সাথে পরিবহন শ্রমিকদের সংঘর্ষে ৪ জন আহত তুচ্ছ ঘটনায় দিনাজপুরে ২টি বাসে আগুন ॥ সমঝোতা বৈঠক সিদ্ধান্ত ছাড়াই শেষ ॥ অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট ॥ চরম দুর্ভোগে জনসাধারণ ফুলবাড়ীতে আন্ত : সম্পর্ক উন্নয়ন সভা অনুষ্ঠিত

বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর, সংবিধান প্রণয়ন কমিটির সদস্য সাবেক সাংসদ এম আব্দুর রহিম গুরুতর অসুস্থ্য

Dinajpur M Abdur Rahim Photo
দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধি ॥ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর, স্বাধীন বাংলাদেশের সংবিধান প্রণয়ন কমিটির সদস্য, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও মুক্তিযুদ্ধ কালিন মুজিব নগর সরকারের পশ্চিমাঞ্চলীয় জোনের চেয়ারম্যান সাবেক সাংসদ এ্যাড. এম. আব্দুর রহিমকে গুরুতর অসুস্থ্য অবস্থায় দিনাজপুর জিয়া হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতাল এন্ড রিসার্চ ইন্সটিটিউটে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে।
মঙ্গলবার দিবাগত মধ্য রাতে তিনি অসুস্থ্য হলে প্রথমে তাকে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও পরে সেখান থেকে বুধবার সকালে দিনাজপুর জিয়া হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতাল এন্ড রিসার্চ ইন্সটিটিউটে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তাকে সিসিইউ বিভাগে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে।
এদিকে তার অসুস্থ্যতার সংবাদ পেয়ে বুধবার সকালে তার পুত্র সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি এম. এনায়েতুর রহিম এবং অপর পুত্র জাতীয় সংসদের হুইপ এম. ইকবালুর রহিম এমপি স্বপরিবারে ঢাকা থেকে দিনাজপুরে এসে পৌছেছেন।
প্রবীন রাজনীতিক ও সাবেক সাংসদ এম. আব্দুর রহিম সিওপিডি, ডায়াবেটিক, হাইপারটেনশন ও এ্যাকুইট হার্ট এ্যাটর্ক রোগে ভুগছেন। প্রবীন এই রাজনীতিকের শারীরিক অবস্থা পর্যবেনের জন্য জিয়া হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালের চীফ কনসালটেন্ট হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. কেএম সোহাইলকে প্রধান করে ৬ সদস্যের একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। এই মেডিকেল বোর্ডের তত্বাবধানে তার চিকিৎসা চলছে। বোর্ডের অন্যান্যরা হলেন- দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহযোগী অধ্যাপক হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. শাহরিয়ার কবির, বক্ষব্যাধী বিশেষজ্ঞ ডা. বিকে বোস, মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. নুরুজ্জামান, ডা. তিমির বরন বসাক ও ডা. মোঃ শাকি আল জাকি।
এম আব্দুর রহিম ছাত্রাবস্থায় রাজশাহী কলেজে ভাষা আন্দোলনের কর্মসূচীতে সংযুক্ত ছিলেন। মুসলিলীগ সরকারের হক-ভাসানী-সোহরাওয়ার্দীর যুক্তফ্রন্টের একজন কর্মি হিসেবে হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর সঙ্গে ১৯৫৪ সালের নির্বাচনি প্রচারাভিযানে অংশ নেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ অন্যান্যদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত ঐতিহাসিক আগরতলা মামলার তিনি। লিগ্যাল এইড কমিটির একজন সদস্য ছিলেন। আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে ১৯৭০ সালে প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হয়ে ১৯৭১ এর মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে বৃহত্তর দিনাজপুর আঞ্চলের মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক হিসেবে অকান্ত পরিশ্রম করেন। ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল মুজিবনগর সরকার গঠন হলে গোটা দেশকে যুদ্ধ পরিচালনার জন্য যে ১১টি বেসামরিক জোনে ভাগ করা হয় এম. আব্দুর রহিম ছিলেন পশ্চিম জোনের জোনাল চেয়ারম্যান। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর তিনি ১৯৭১ সালের ১৮ ডিসেম্বর দিনাজপুর গোর-এ-শহীদ বড় ময়দানে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রথম স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন।
১৯৭২ সালের ১১ এপ্রিল স্বাধীন বাংলাদেশের সংবিধান প্রনয়নের জন্য গঠিত কমিটির ৩৪ জন সদস্যের মধ্যে একজন সদস্য ছিলেন এম. আব্দুর রহিম। তিনি ১৯৯১ সালে দিনাজপুর সদর আসন থেকে জাতীয় সংসদ সদস্য পুনরায় নির্বাচিত হন। তিনি দীর্ঘদিন দিনাজপুর জেলা আওয়ামীলীগ ও দিনাজপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।
তাঁর অসুস্থতার জন্য দিনাজপুরের রাজনীতিবিদ, শিক্ষাবিদ, ব্যবসায়ী মহলসহ সকল সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে তার রোগমুক্তি কামনা করে দোয়া খায়ের করেছেন।##

আপনার মতামত লিখুন

রংপুর বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ