বুধবার,২১শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং,৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সময়: ভোর ৫:২০
বাংলাদেশ তিন বছরের জন্য ওপিসিডাব্লিউ’র সদস্য নির্বাচিত মির্জাপুরে ভ্রামমাণ আদালতের অভিযানে ৫ ড্রেজার মেশিন ধ্বংস ও ২ জনের সাজা পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (সা.) কাল শহীদ জিয়া জনসংখ্যাকে মানব সম্পদে পরিনত করেছিলেন একারণেই আমি বিএনপি’র রাজনীতি করি- সৈয়দপুর পৌর মেয়র হাতীবান্ধায় জলপাইয়ের বিচি গলায় আটকে শিশুর মৃত্যু “জলঢাকায় প্রত্যন্ত এলাকায় প্রাইমারী ও ইবতেদায়ী পরীক্ষা কেন্দ্র ভাবনচুর এমটিএস উচ্চ বিদ্যালয়” ইসি সচিবসহ সংশ্লিষ্ট চারজনের শাস্তি দাবি বিএনপির

আবশেষে জাল দলিল সৃষ্টিকারী প্রশাসনের কাছে ধরা খায়।

ফুলবাড়ীতে জাল দলিল সৃষ্টি করে প্রতিপক্ষকে হয়রানী ॥

ফুলবাড়ী দিনাজপুর প্রতিনিধি,
ফুলবাড়ীতে জালদলিল সৃষ্টি করে প্রতি পক্ষকে হয়রানী অবশেষে জালদলিল সৃষ্টিকারি প্রশাসনের কছে ধরা খায়। দিনাজপুর জেলার ফুলবাড়ী উপজেলার এলুয়াড়ি ইউপির খাজাপুর গ্রামের মৃত জালাল উদ্দিন এর পুত্র মো: দুলাল হোসেন এর অভিযোগে জানা যায় যে, দিনাজপুর জেলার মহেসপুর লক্ষিতলা, সদর উপজেলা বর্তমান দিনাজপুরের মুন্সিপাড়ায় বসবাসরত। মৃত খলিলুর রহমান চৌধুরী পুত্র মোঃ আশরাফুল আলম গত ২৬/১২/২০১৬ ইং তারিখে পার্বতীপুর সাব-রেজিষ্ট্রার অফিসে দাগ নং ৩৮৮, খতিয়ান ৬৫, জমির পরিমাণ ৩.২৫ এর মধ্যে ২.৮৭ শতক জমি পাওয়ার দলিল করে দেন। ফুলবাড়ী উপজেলার এলুয়াড়ি ইউপির স্বরস্বতীপুর গ্রামের মৃত জালাল উদ্দিন এর পুত্র মোঃ দুলাল ও মোশাররফ হোসেন এর নিকট গত ২৪/০৪/২০১৮ ইং তারিখে পার্বতীপুর রেজিষ্ট্রী অফিসে জমি বিক্রি করে দেন। যার দলিল নং ৩৪৬০। পরবর্তীতে ফুলবাড়ী উপজেলার খাজাপুর গ্রামের মোশাররফ হোসেন ও দুলাল হোসেনকে গত ২৪/০৪/২০১৮ ইং তারিখে হেপা বিল দলিল করে দেন। যাহার জমির পরিমাণ ২.৮৭ শতক। দলিল নং-৩৪৬৭। এদিকে ফুলবাড়ী উপজেলার এলুয়াড়ি ইউপির নবগ্রামের মৃত হাবু উদ্দিন এর পুত্র আফজাল হোসেন ও মোঃ বেলাল হোসেন ১৯৬৯ সালে চিরিরবন্দর সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে বানিহারী মৌজার ৬১ খতিয়ানের ৩৩৮ দাগের ২৮২ এর মধ্যে ৫৭ শতক জমি ২৭/০৩/১৯৬৯ সালের একটি দলিল দেখান। যার দলিল নং- ৫৪৭৯ খোশ কবলা দলিলের সার্টিফাইড কপির সঠিক আছে কিনা যাচাই করার জন্য স্মারক নং-৩১.০২.২৭৭৭.০০০.০২০১৪.১৭৩৫৭- ১৫/০৩/২০১৭ ইং তারিখে দিনাজপুর আদালতের মোকদ্দমা নং ঢওওওও৪৭/১৬-১৭ এর গত ১৩/০৩/২০১৭ ইং এর আদেশ মোতাবেক তরফদার মাহমুদুর রহমান উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী অফিসার (ভূমি) (অ:দ:) সাব রেজিষ্ট্রারের কার্যালয় সদর দিনাজপুরে স্মারক নং-২৮১, তারিখ ২৮/০৩/২০১৭ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সদর রেকর্ড রুম কে প্রেরণ করেন। সেখানে ছায়ালিপিটি দিনাজপুর জেলা সাব রেজিষ্ট্রি অফিসে রেজিষ্ট্রিকৃত ২৭/০৩/১৯৬৯ ইং তারিখের ০৫/০৪/২০০৭ নং কবলা দলিলটি যাহার ১২/০৩/২০১৭ তারিখে ইস্যু হইয়াছে। উক্ত দলিলটি রক্ষিত রেকর্ডের সঙ্গতে মিল রহিয়াছে মর্মে ২৮/০৩/২০১৭ ইং তারিখে পত্র দ্বারা সহকারী কমিশনার (ভূমি) পার্বতীপুরকে জানিয়ে দেন। অপর দিকে খাজাপুর গ্রামের মোস্তাফিজুর রহমান দুলাল ২০/০১/১৯৬৯ তারিখে ফুলবাড়ীতে দলিল নং ২১৬ দাতা দেখাইয়াছে খলিলুর রহমান চৌধুরীকে। মোস্তাফিজুর রহমান দুলাল এর ভোটার আইডি কার্ডে জন্ম তারিখ-১৯৬৮ দেখানো হয়েছে। বেলাল প্রমাণিকে জন্ম তারিখ ১৯৬৯ দেখাইয়াছে। শিবপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের নাম রেজিষ্ট্রেশন ও জন্ম তারিখ ০৭/০৮/১৯৮৪, রেজি নং- ৭৯৭২৯২ ৯ম শ্রেণিতে দেখাইয়াছে। জমির দাতা খলিলুর রহমান চৌধুরী এর নিকট মোঃ আব্দুল কাদের, পিতা- মোঃ আশরাফ আলী, সাং- খাজাপুর, জমি ক্রয় করে দলিল নং ১২৩২৩ তারিখ ১৫/০৮/১৯৬৬ ফুলবাড়ী সাব রেজিষ্ট্রী অফিস দেখাইয়াছে। দলিল নং- ১২২৬, তারিখ- ২৩/১১/১৯৬৪, দলিল নং- ২৩১৮, তারিখ- ০৯/০৩/১৯৬৫ দেখাইয়াছে। যাহা রীতিমতো জাল। দিনাজপুর রেকর্ডরুমে ভূয়া ঐসব দলিলের কোন রেকর্ড নাই। ভূমিদস্যুরা এভাবে জাল দলিল সৃষ্টি করে প্রকৃত জমির মালিকদেরকে হয়রাণি করছে। এ ব্যাপারে মোঃ দুলাল তদন্ত স্বাপেক্ষে জাল দলিল সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

আপনার মতামত লিখুন

দিনাজপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ