মঙ্গলবার,২১শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং,৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ৩:২২
দিনাজপুর মহিলা পরিষদ এর উদ্যোগে আলোচনা সভা ‘এএসওসিআইও-২০১৭ ডিজিটাল গভর্নমেন্ট অ্যাওয়ার্ড’ গ্রহণ প্রধানমন্ত্রীর সরকার সশস্ত্র বাহিনীর আধুনিকায়নে সর্বাত্মক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী পার্বতীপুরে প্রতিপক্ষের হাতে কৃষক নিহত॥ গ্রেফতার ৩ লালপুরে বাল্য বিয়ে প্রতিরোধে শপথ গ্রহণ সালমান শাহ হত্যা মামলার তদন্ত চলছে লালপুরে গোসাইজীর আশ্রমে নবান্ন উৎসব

ফরিদপুরে দফায় দফায় হামলা, ভাংচুর, লুটপাট উচ্ছেদের মুখে একটি পরিবার

%e0%a6%ab%e0%a6%b0%e0%a6%bf%e0%a6%a6%e0%a6%aa%e0%a7%81%e0%a6%b0ফরিদপুর সংবাদদাতা: ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার পুরাপাড়া ইউনিয়নের সুধির চন্দ্র শীল নামের একটি হিন্দু পরিবার এখন নিজ বাড়ী থেকে উচ্ছেদের মুখে রয়েছে। গ্রাম্য বিরোধের জের ধরে ঐ পরিবারের উপর বেশ কয়েকবার হামলার ঘটনা ঘটেছে। দফায় দফায় হামলায় বাড়ী ভাংচুর, লুটপাট ও আগুন দেবার ঘটনা ঘটেছে। প্রভাবশালী একটি মহলের নির্যাতনের ভয়ে ঐ পরিবারটির পুরুষ সদস্যরা এখন গ্রাম ছাড়া। হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনায় একটি মামলা হলেও আসামীরা রয়েছে ধরা ছোঁয়ার বাইরে। ফলে চরম নিরাপত্তাহীনতায় দিন কাটাচ্ছে সুধির চন্দ্র শীলের পরিবারের সদস্যরা।
অভিযোগ ও এলাকায় খোজ নিয়ে জানা গেছে, পুরাপাড়া ইউনিয়নের সুধির চন্দ্র শীলের সাথে পার্শ্ববর্তী বকুল শেখের সাথে গ্রাম্য দলাদলি ও জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলছিল দীর্ঘদিন ধরে। গত ২ অক্টোবর বকুল শেখের মেয়ে বৃষ্টি আক্তার বিষপানে আত্মহত্যা করে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বকুল শেখ দায়ী করে সুধির চন্দ্র শীলের ছেলে জয়ন্ত শীলকে। পরে বকুল শেখের লোকজন গত ৪ অক্টোবর প্রথম দফায় হামলা চালায় সুধিরের বসত বাড়ীতে। হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করা হয়। ঘর-বাড়ী কুপিয়ে নষ্ট করা হয়। লুটপাট করা হয় বাড়ীর মালামাল। প্রানভয়ে বাড়ীর পুরুষ সদস্যরা পালিয়ে থাকতে বাধ্য হয়। গত এক সপ্তাহ আগে ফের বাড়ীতে হামলা চালানো হয়। ভাংচুরের পাশাপাশি ব্যাপক লুটপাট চালানো হয়েছে। এসময় হামলাকারীরা ৬ ভরি সোনা, নগদ ৬ লাখ টাকা, ফ্রিজ,টিভি, আসবাবপত্র, সোফাসেট, বাক্স, ৩টি খাট লুট করে নিয়ে যায়। হামলাকারীরা জামা-কাপড় এমনকি ঘরের থালা-বাসনও নিয়ে যায় বলে অভিযোগ রয়েছে। ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে ঘরের অন্যান্য আসবাবপত্র ও বিদ্যুতের সরঞ্জামাদি। এ হামলার রেশ কাটতে না কাটতেই গত বৃহস্পতিবার রাতে আবারো  হামলা চালানো হয়। এবার হামলাকারীরা বাড়ীতে রক্ষিত কয়েক মন পিয়াজ, পাট, ৪টি ছাগল লুট করে নিয়ে যায়। কেটে ফেলে বেশ কিছু গাছ। উপড়ে ফেলে একটি টিউবয়েল। একটি রান্না ঘর আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। বাড়ীতে পুরুষ মানুষ না থাকার সুবাদে প্রভাবশালী মহলটি একের পর এক হামলা চালিয়ে লুটে নেয় সবকিছু। দফায় দফায় হামলা ও লুটপাটের কারনে সর্বশান্ত হয়ে পড়েছে সুধির চন্দ্র শীল। বসত ঘরে থাকা কিংবা রান্না করে খাওয়ার কোন উপায় না থাকায় চরম মানবেতর ভাবে দিন কাটাতে হচ্ছে তাদের। বাড়ীর পুরুষ সদস্যরা প্রাননাশের হুমকিতে পালিয়ে থাকায় বাড়ীর মহিলারা এখন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। সুধির চন্দ্র শীল অভিযোগ করে বলেন, বকুল শেখের মেয়ে বৃষ্টি তার মায়ের সাথে অভিমান করে বিষপানে আত্মহত্যা করে। এতে সুযোগটি কাজে লাগায় বকুল শেখ। তার সাথে গ্রাম্য দলাদলি থাকায় সে আমার ছেলের উপর দোষ চাপিয়ে একের পর এক হামলা করে সবকিছু লুটপাট করে নেয়। গ্রামে ফিরে গেলে আমাকে ও আমার পরিবারের অন্যসদস্যদের লাশ হতে হবে বলে হুমকি দেয়া হচ্ছে। আসামীরা দিনের পর দিন লুটতরাজ করলেও দেখার যেন কেউ নেই। এ বিষয়ে আদালতে একটি মামলা করা হয়েছে। আমি এ ধরনের ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত ও বিচার চাই। এদিকে, বকুল শেখ জানায়, বিক্ষুব্দ গ্রামবাসী হামলা করে বাড়ী ভাংচুর করেছে। লুটপাটের কোন ঘটনা ঘটেনি।
নগরকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কমকর্তা সৈয়দ অব্দুল্লাহ্ জানিয়েছে, বকুল শেখ ও সুধির চন্দ্র শীল দুজনকেই শান্ত থাকার কথা বলা হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় মামলা হয়েছে। তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার মতামত লিখুন

খুলনা,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ