বৃহস্পতিবার,২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং,৬ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ৭:৪১

দিনাজপুর জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক কচি’র মুক্তির দাবীতে সংবাদ সম্মেলন রোহিঙ্গাদের নির্যাতন বন্ধের দাবীতে ঝিনাইগাতীতে ওলামা মাশায়েখ ঐক্য পরিষদের উদ্দ্যোগে মানববন্ধন সাংবাদিকতায় চ্যানেল টোয়েন্টিফোরে চাকরির সুযোগ আহছানিয়া মিশনে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি, বেতন ১৫ হাজার টাকা ডিপ্লোমা পাসে বিমানে চাকরি ঢাকার পাশে অপ্পোতে কাজের সুযোগ আকর্ষণীয় বেতনে প্রথম আলোতে চাকরি

নির্ধারিত সময়ের ৪ মাস আগেই প্রকল্প বাস্তবায়ন হবে

পার্বতীপুরে বড়পুকুরিয়ায় কয়লাভিত্তিক ২৭৫ মেগাওয়াট ক্ষমতার বিদ্যুৎ ইউনিটের নির্মাণ কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে

13

পার্বতীপুর থেকেঃ দেশে ক্রমবর্ধমান বিদ্যুৎ চাহিদা পুরণের লক্ষ্যে পার্বতীপুরে বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে ২৭৫ মেগাওয়াট (নীট) উৎপাদন ক্ষমতার ৩ নম্বর ইউনিট স্থাপন কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। ২০১৮ সালের জুলাই মাসের মধ্যে ইউনিটটি উৎপাদনে যাওয়ার কথা। ইতিমধ্যে নতুন ইউনিটটির ৪০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। ইউনিটটি বাস্তবায়ন শেষে উৎপাদনে গেলে বড়পুকুরিয়া ২৫০ মেগাওয়াট কয়লাভিত্তিক তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উৎপাদন ক্ষমতা ৫২৫ মেগাওয়াটে গিয়ে দাঁড়াবে। এটি বিদ্যুৎ সেক্টরে সাফল্যের আরেক ধাপ অগ্রগতি। এরফলে দেশের উত্তর-পশ্চিম জোনের বিদ্যুতের চাহিদা পুরন সহ লো ভোল্টেজ জনিত সমস্যা কমে আসবে। এদিকে, ৩ নম্বর ইউনিট নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ায় প্রত্যক্ষভাবে এলাকার প্রায় ১ হাজার শ্রমিকের কর্মসংস্থান হয়েছে এবং পরোক্ষভাবে আরও ৫ হাজার লোক উপকৃত হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে।
জানা গেছে, পার্বতীপুরে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি থেকে আহরিত কয়লা জ¦ালানি হিসেবে ব্যবহার করে খনিমুখে ২৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতার একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র গড়ে তোলা হয়। বিদ্যুৎ কেন্দ্রটিতে ১২৫ মেগাওয়াট ক্ষমতার দুটি ইউনিট রয়েছে। এর পাশেই ২৭৫ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন ৩ নম্বর ইউনিট স্থাপন করা হচ্ছে।
সুত্রমতে, ২৭৫ মেগাওয়াট ক্ষমতার ৩ নম্বর ইউনিটটি বাস্তবায়ন করছে চীনের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জয়েন্ট ভেঞ্চার অব হারবিন ইলেকট্রিক ইন্টারন্যাশনাল ও সিসিসি ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানী লিমিটেড। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান গত বছরের জুলাই মাস থেকে প্রকল্প বাস্তবায়ন কাজ শুরু করে। গত সোমবার সরেজমিন প্রকল্প এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মুল ভবন (বয়লার ও মেশিন হাউজ) সংলগ্ন উত্তর পাশে ৩ নম্বর ইউনিটের বয়লার, টারবাইন, চিমনি নির্মাণের পাইলিং সহ সিভিল ওয়ার্ক প্রায় শেষ পর্যায়ে। মেইন ভবন ও বয়লার হাউজের স্টীল স্টাকচার, ২২০ মিটার চিমনি নির্মাণ সহ অন্যান্য কাজ পুরোদমে চলছে। বৃষ্টির মধ্যে ভিজে চীনা প্রকৌশলী, বিউবোর কর্মকর্তা-কর্মচারী ও দেশী শ্রমিকরা যে যার কাজে ব্যস্ত।
সেখানে কথা হয় ৩ নম্বর ইউনিট বাস্তবায়ন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক (পিডি) চৌধুরী নুরুজ্জামানের সাথে। তিনি ভোরের কাগজকে বলেন- চলতি জুলাই মাসের মধ্যে ৩০ শতাংশ কাজের টার্গেটের বিপরীতে ৪০ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। প্রায় ১ হাজার দেশী শ্রমিক, প্রায় ২৫০ জন চীনা প্রকৌশলী ও বিউবোর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা দিনরাত কাজ করায় তা সম্ভব হয়েছে। বিদেশ থেকে আমদানীকৃত ৯০ শতাংশ যন্ত্রপাতিও প্রকল্প এলাকায় চলে এসেছে। অবশিষ্ট ১০ শতাংশ যন্ত্রপাতি আগামী মাসে প্রকল্প এলাকায় চলে আসবে। ২০১৮ সালের জুন মাসের মধ্যে ইউনিটটি উৎপাদনে যাওয়ার কথা থাকলেও যে গতিতে কাজ চলছে তাতে করে নির্ধারিত সময়ের কমপক্ষে ৪ মাস আগেই প্রকল্প বাস্তবায়ন শেষে ইউনিটটি উৎপাদনে যাবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। পিডি আরও বলেন, তৃতীয় ইউনিটটি উৎপাদনে গেলে দেশের উত্তর-পশ্চিম জোনের বিদ্যুতের চাহিদা পুরন হবে এবং লো ভোল্টেজ জনিত সমস্যা কমে আসবে। এছাড়া, এখানকার বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রীডে যোগ হয়ে ট্রান্সমিশন লস কমাবে। ৩ নম্বর ইউনিটটি চালু রাখতে প্রতিদিন গড়ে প্রায় ২ হাজার টন হিসেবে বছরে প্রায় ৭ লাখ টন কয়লার প্রয়োজন হবে। এতে করে বড়পুকুরিয়া খনির কয়লার সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করা যাবে বলে তিনি মনে করেন।
উল্লেখ্য, দরপত্রদাতার ঋণের (বায়ারস ক্রেডিট) আওতায় চীনের জয়েন্ট ভেঞ্চার অব হারবিন ইলেকট্রিক ইন্টারন্যাশনাল ও সিসিসি ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানী লিমিটেড ২৭৫ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন ৩ নম্বর ইউনিটটি বাস্তবায়ন করছে। প্রকল্প ব্যয় ধরা হয়েছে ২ হাজার ৬৮৭ কোটি টাকা। এরমধ্যে ১ হাজার ৮৩৫ কোটি টাকা বৈদেশীক মুদ্রা ও ৮৫২ কোটি টাকা দেশীয় মুদ্রা রয়েছে। এতে প্রতি কিলোওয়াট স্থাপন ব্যয় হবে প্রায় ১ হাজার ২০০ মার্কিন ডলার। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের সাথে পিডিবি’র চুক্তি স্বাক্ষর হয় ২০১৩ সালের ৪ জুলাই। চুক্তি কার্যকর হয় ২০১৫ সালের ১৫ জুলাই এবং চুক্তি কার্যকরের পর পরই প্রকল্প বাস্তবায়ন কাজ শুরু হয়। চুক্তি কার্যকরের দিন থেকে প্রকল্প বাস্তবায়নের মেয়াদ ৩ বছর ধরা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন

রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ