রবিবার,২৪শে জুন, ২০১৮ ইং,১০ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সময়: সন্ধ্যা ৬:২৫
ফরিদপুরে নারীদের মাঝে ঔষধী ও ফলজ চারা বিতরণ কুমিল্লার এক মামলায় খালেদা জিয়ার জামিনের রায় ২ জুলাই টেংরাটিলা গ্যাস ফিল্ড বিস্ফোরণের ১৩ বছর আজ আমি তো ব্রাজিলের সমর্থক: নিশো ঐশ্বরিয়া হবেন ‘ইন্ডিয়ান ম্যাডোনা গাজীপুরে শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থী ও সমর্থকরা প্রথমবারের মতো অনলাইনে ছবি প্রদর্শনীর আয়োজন

পার্বতীপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিকদের সংবাদ সম্মেলন

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: পার্বতীপুরে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনিতে গত মঙ্গলবার সকালে খনির গেটে শ্রমিক-কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের মধ্যে মারপিটের ঘটনাকে খনি কর্মকর্তাদের পরিকল্পিত ও উস্কানিমূলক বলে আখ্যায়িত করেছে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়ন। সংগঠনটি শনিবার দুপুরে খনির আবাসিক গেটের সামনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবী করেন। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের সাধারন সম্পাদক আবু সুফিয়ান। বক্তব্য দেন সভাপতি রবিউল ইসলাম, সাবেক সভাপতি ওয়াজেদ আলী, ক্ষতিগ্রস্ত বিশ গ্রামের সম্বনয় কমিটির আহবায়ক মিজানুর রহমান মিজান, সাবেক আহবায়ক মশিউর রহমান বুলবুল, সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম ও মোঃ জোবেদ আলী।
লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, খনির কর্মকর্তাদের হাতে শ্রমিক এনামুল হক, মোস্তফা, মোতালেব, আয়জার আলী, রাকিব হোসেন, আফজাল হোসেন, আবু সুফিয়ান, নুরুল হক, মুকুল আহত হন। এদের মধ্যে এখনো কয়েকজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। শ্রমিকেরা সম্পূর্ণ নিরস্ত্র ও শান্তিপূর্ণভাবে তাদের কর্মসূচি পালনকালে গত মঙ্গলবার সকালে ৭-৮ জন কর্মকর্তা মোটরসাইকেল যোগে গেটে গিয়ে শ্রমিকের উপর হামলা চালায়। তারা আরো বলেন, সেদিনের ঘটনা মোবাইলে ধারণকৃত ছবি দেখে ধারনা করা যাবে কর্মকর্তারা কতটা সশস্ত্র ও আক্রমণাত্বক ছিলেন। একই সময় শতাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারী ভেতর থেকে এসে শ্রমিকদের ওপর হামলা করে। সেদিন ঘটনার সময় সর্বোচ্চ ১৪-১৫ শ্রমিক খনি গেটে উপস্থিত ছিলেন বলে সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করা হয়।
শ্রমিক নেতারা খনি শ্রমিকদের ওপর হামলার ঘটনাকে ধিক্কার জানিয়েছেন গত বৃহস্পতিবার খনির মনমেলায় অনুষ্ঠিত কর্মকর্তাদের ডাকা সংবাদ সম্মেলনে খনির শ্রমিক ও ক্ষতিগ্রস্ত বিশ গ্রাম সম্বনয় কমিটির নেতৃবৃন্দের নামে মিথ্যাচার করেছেন বলে উল্লেখ করেন শ্রমিকনেতারা। তারা খনি শ্রমিক ও সম্বনয় কমিটির নামে দায়েরকৃত ৪টি মামলাকে মিথ্যা মামলা হিসেবে অভিহিত করেন। তারা সব কয়টি মামলা অবিলম্বে প্রতাহারেরও দাবী জানান।
আগামী সোমবারের (২১ মে) মধ্যে শ্রমিকদের ১৩ দফা ও ক্ষতিগ্রস্ত বিশ গ্রাম সম্বনয় কমিটির ৬ দফা দাবী মেনে নেয়া না হলে আরো কঠর কর্মসূচি দেয়ার হুশিয়ারী দেন শ্রমিকনেতারা। সকাল সাড়ে ১১টায় শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়ন ও ক্ষতিগ্রস্ত বিশ গ্রাম সম্বনয় কমিটির নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল খনি এলাকার সড়ক প্রদক্ষিণ করে।
উল্লেখ্য, শ্রমিক-কর্মচারীদের ডাকা অনির্দিষ্টাকালে কর্মবিরতি ও অবস্থান কর্মসূচির ৭দিন অতিবাহিত হয় আজ শনিবার। গত ১৩ মে ভোর ৬ টা থেকে শ্রমিক-কর্মচারীরা তাদের ১৩ দফা ও ক্ষতিগ্রস্ত বিশ গ্রাম সম্বনয় কমিটির ৬ দফা দাবী আদায়ের জন্য অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি ও অবস্থান ধর্মঘট শুরু করে।

আপনার মতামত লিখুন

রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ