শনিবার,২৫শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং,১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১২:৩১
বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা শুরু আমরা ম্যাচ বাই ম্যাচ যেতে চাই: রুবেল কুষ্টিয়ায় বাস-ট্রাক সংঘর্ষে সুপারভাইজার নিহত বারী সিদ্দিকীর মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক কালুখালি থানা-মাহেন্দ্রপুর ফাড়িঁ ও ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের উদ্বোধন জলঢাকায় যুব মহিলা লীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল ও আলোচনা সভা অনুষ্টিত পার্বতীপুরে আমনের বাম্পার ফলন ॥ কৃষকের মুখে হাসি

নির্বাচনে ক্ষমতার রং পাল্টালেও, পাল্টেনি গ্রহণ-বর্জনের রেওয়াজ

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক:  সব দলের অংশগ্রহণে আগামী জাতীয় নির্বাচন বাংলাদেশের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ বলে মনে করছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ। দেশগুলোর সংসদ সদস্যরা মনে করেন, গণতন্ত্রকে অর্থপূর্ণ করতে সব রাজনৈতিক দলের যেমন নির্বাচনে অংশ নেয়া উচিত, তেমনি নির্বাচনের পরিবেশ তৈরির দায়িত্ব নিতে হবে সরকারকে। সম্প্রতি আন্তর্জাতিক একটি সম্মেলনে যোগ দিতে ঢাকায় আসা সংসদ সদস্যরা সময় সংবাদের সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে বলেন, অর্থনৈতিক উন্নতির যে ধারায় হাঁটছে বাংলাদেশ, কার্যকর গণতন্ত্রই পারে তা ধরে রাখতে।

নির্বাচন কেন্দ্রিক অস্থিরতা যেন এ দেশের রাজনৈতিক সংস্কৃতিরই অংশ। নির্বাচন হয়, একপক্ষ জয় উদযাপন করেন, অন্যপক্ষ কারচুপির অভিযোগে তা বর্জনের ঘোষণা দেন। স্বৈরাচার বিরোধী দীর্ঘ সংগ্রামের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ গণতান্ত্রিক ধারায় ফিরেছে প্রায় দুই দশক ধরে। এরপর অনুষ্ঠিত হয়েছে ৬টি জাতীয় নির্বাচন। নির্বাচনের পদ্ধতি আর ক্ষমতার রং পাল্টেছে, পাল্টেনি শুধু গ্রহণ আর বর্জনের রেওয়াজ।

নিয়ম অনুযায়ী একবছরের ব্যবধানে আগামী জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। দেশবাসীর পাশাপাশি আগ্রহী আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ও। ১৯৯১ সালে নির্বাচন পর্যবেক্ষক হিসেবে বাংলাদেশে আসা যুক্তরাজ্যের বর্তমান এই উচ্চ-কক্ষের সদস্যের প্রত্যাশা একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের।

যুক্তরাজ্য হাউজ অব লর্ডস সদস্য জর্জ ফুকস বলেন, ‘নির্বাচনে সব দলের অংশগ্রহণ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমি আশা করবো সরকার এটিকে সম্ভব করবে, বিশেষ করে অন্যতম প্রধান দল বিএনপি যাতে নির্বাচনে অংশ নেয়। আমি বিএনপিকে নির্বাচনে অংশ নেয়ার আহ্বান জানাবো তবে নির্বাচনের রাজনৈতিক পরিবেশ তৈরির দায়িত্বটি সরকারের।’

এক্ষেত্রে দেশের জনগণের প্রতি রাজনৈতিক দলগুলোর দায়বদ্ধতার কথা স্মরণ করিয়ে দেন তারা।

দক্ষিণ আফ্রিকা ডেপুটি স্পিকার লিসিসা টেনোলি বলেন,‘কারা তাদের দেশটি পরিচালনা করবে, গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থায় জনগণের সেটা নির্ধারণের অধিকার রয়েছে। নির্বাচন হতে হবে অংশগ্রহণমূলক, এবং নির্বাচনের ব্যবস্থাটি হতে হবে আগে থেকেই গ্রহণযোগ্য। এছাড়া নির্বাচন যারা পরিচালনা করবেন, তাদেরও গ্রহণযোগ্যতা থাকতে হবে।’

কানাডা সংসদ সদস্য থমাস মালকেয়ার বলেন, ‘গণতন্ত্রের সৌন্দর্য হলো জনগণের ভোট দেয়ার সুযোগ থাকতে হবে, এবং তারাই ঠিক করবেন কারা তাদের নেতা হবেন। সংশ্লিষ্টদের দায়িত্ব হলো সে পদ্ধতিটা স্বচ্ছ, নিরপেক্ষ করা।’

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সংসদ সদস্যরা মনে করছেন, সংসদকে কার্যকর রাখতে এবং একটি সুষ্ঠু গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখতে শক্তিশালী বিরোধীদল গঠন এবং তাদের রাজনৈতিক অধিকার চর্চার ব্যাপারেও সরকারকেই পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে।

সূএ: সময়টিভি
আপনার মতামত লিখুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ