শুক্রবার-১৯শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং-৬ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১০:১৫
পঞ্চগড়ে সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত বিশ্বকাপে নতুন যে অস্ত্র নিয়ে মাঠে নামবেন মোস্তাফিজ ফের বিয়ের পিঁড়িতে শ্রাবন্তী ? নুসরাত হত্যায় অর্থ লেনদেন, তদন্তে সিআইডি হাত ও মুখের সাহায্যে এইচএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে প্রতিবন্ধী বাবুল ১০ টাকায় টিকিট কেটে চিকিৎসাসেবা নিলেন প্রধানমন্ত্রী ব্রীজটির আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন

নাটোর-১ আসন ধানের শীষ তুমি কার?

4 months ago , বিভাগ : রাজনীতি,

মোঃ আশিকুর রহমান টুটুল, নাটোর প্রতিনিধি,
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আর মাত্র ৬দিন বাঁকি এর মধ্যে নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনে বিএনপির প্রার্থী নিয়ে নাটকীয়তার শুরু হয়েছে। সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের ১০ দিন আগে ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী মুনজুরুল ইসলাম বিমল কে বাদ দিয়ে এই আসনে বিএনপির প্রার্থী অধ্য কামরুন্নাহার শিরীন কে ধানের শীষ প্রতীক দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন উচ্চ আদালত। বিএনপির চূড়ান্ত প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দেওয়ার পর প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষের দিনে তাকে প্রতীক না দেওয়ায় উচ্চ আদালতে রিট করেন অধ্য কামরুন্নাহার শিরীন। অধ্য কামরুন্নাহার শিরীন এর রিট আবেদনের শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার (২০ডিসেম্বর) বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে রিটের পে শুনানিতে ছিলেন অ্যাডভোকেট ফারজানা শারমিন পুতুল। অন্যদিকে রাষ্ট্রপে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু।
যদিও এ আসনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রচারণা চালাচ্ছিলেন ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী কৃষক-শ্রমিক জনতালীগের মুনজুরুল ইসলাম বিমল।
জানা গেছে, প্রথমে এ আসনে বিএনিপর যৌথ মনোনয়ন পান বিএনপির কেন্দ্রী কমিটির সহ-দপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু ও অধ্য কামরুন্নাহার শিরীন। এদের মধ্যে অধ্য কামরুন্নাহার শিরীন কে ধানের শীষ প্রতীকে চূড়ান্ত মনোনয়ন দেওয়া হয়। অধ্য কামরুন্নাহার শিরীন বিএনপির চূড়ান্ত মনোনয়ের চিঠি রিটার্নিং কর্মকর্তার নিকট দাখিলের পরেই প্রার্থীতা পরিবর্তনের শেষ দিনে কয়েক ঘন্টা আগে হঠাৎ করেই তাকে বাদ দিয়ে মুনজুরুল ইসলাম বিমল কে এই আসনের ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করে ধানের শীষ প্রতীক বরাদ্দ দিতে রিটার্নিং কর্মকর্তাকে আর একটি চিঠি পাঠায় বিএনপি। এতে অধ্য কামরুন্নাহার শিরীনের প্রার্থীতা বাতিল হয়ে যায়।
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বারিত এক পত্রে কৃষক-শ্রমিক জনতালীগের মুনজুুরুল ইসলাম বিমলকে দলীয় প্রতীক ‘ধানের শীষ বরাদ্দ’ দিতে নাটোর জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসককে অনুরোধ করা হয়েছে।
চিঠিতে কামরুন্নাহার শিরীনকে ‘অনিবার্য কারণবশত’ ও জোটবদ্ধ নির্বাচনের সিদ্ধান্তের কারণে মনোনয়ন দেয়া হয়নি বলেও উল্লেখ করা হয় ।
পরে মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিনে চূড়ান্ত মনোনয়নের চিঠি রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে দাখিল করেন ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী কৃষক-শ্রমিক জনতালীগের মুনজুরুল ইসলাম বিমল। এদিকে চূড়ান্ত মনোনয়ন দাখিলের পর কীভাবে তার প্রার্থীতা বাতিল করা হলো এবং কেন তাকে দলীয় প্রতীক দেওয়া হলো না তা জানতে চেয়ে উচ্চ আদালতে রিট আবেদন করেন কামরুন্নাহার শিরীন।
এ ব্যাপারে কামরুন্নাহার শিরীন বলেন, আমি আমার প্রার্থীতা ফিরে পেয়েছি। আমার নেতাকর্মীরা কাজ করছে। ঢাকায় আর একটু কাজ আছে। কাজটুকু সেরে হয়তো নির্বাচনী এলাকায় চলে আসবো ইনশাল্লাহ।
জানতে চাইলে ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত কৃষক-শ্রমিক জনতা লীগের প্রার্থী মুনজুরুল ইসলাম বিমল বলেন,‘ জোটের সিদ্ধান্ত তার পইে আছে, উচ্চ আদালতের রায়টি স্থগিত করতে চেম্বার কোর্টে আপিলের জন্য তিনি ঢাকায় অবস্থান করছেন। চেম্বার কোর্টে আপিল করলে উচ্চ আদালতের রায়টি স্থগিত হবে। সেেেত্র এ আসনে তিনিই ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী থাকবেন বলে জানান।’ সংগত কারণেই তার নেতাকর্মীদের ওই পর্যন্ত অপো করা ছাড়া আর কোন উপায় নেই।সব মিলিয়ে ভোটারদের মাঝে এখন প্রশ্ন দেখা দিয়েছে ধানের শীষ আসলে তুমি কার?

আপনার মতামত লিখুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ