শুক্রবার,২৪শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং,১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ২:৩৬
হবিগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩ ২০১৯ সালের মধ্যে ১শ’ কারিগরি স্কুল-কলেজ হচ্ছে পার্বতীপুরে মধ্যপাড়া পাথর খনির ২৫ শ্রমিক পুরস্কৃত আক্রোশের বলি কোমলমতি পরীার্থীরা হবিগঞ্জে মাইক্রোবাস মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ৩ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের সাথে পরিবহন শ্রমিকদের সংঘর্ষে ৪ জন আহত তুচ্ছ ঘটনায় দিনাজপুরে ২টি বাসে আগুন ॥ সমঝোতা বৈঠক সিদ্ধান্ত ছাড়াই শেষ ॥ অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট ॥ চরম দুর্ভোগে জনসাধারণ ফুলবাড়ীতে আন্ত : সম্পর্ক উন্নয়ন সভা অনুষ্ঠিত

নবাগঞ্জে নারী নির্যাতন মামলায় পুলিশের হাতে আটক ১

মোঃ আফজাল হোসেন ফুলবাড়ি দিনাজপুর প্রতিনিধি
দিনাজপুর জেলার নবাবগঞ্জ থানার নারী নির্যাতন মামলার অন্যতম আসামী মতিহারা গ্রামের মোকছেদ আলী দুলাল (৫২) কে রবিবার ১৬ জুলাই রাত সাড়ে ৮টায় গ্রেফতার করা ১৭ জুলাই জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। বিরামপুর সার্কেলের এএসপি হাফিজুর রহমানের তত্ত্বাবধানে নবাবগঞ্জ থানার এসআই রাসেল মন্ডল ও সঙ্গীয় ফোর্স মতিহারা বাজার হতে দুলালকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়। ঘটনায় প্রকাশ থানার মতিহারা গ্রামের মোকছেদ আলী (দুলাল) এর পুত্র আঃ রউফ একই গ্রামের সৈয়দা জাকিয়াকে ০৬/০২/১৫ইং তারিখে পাঁচ ল টাকা দেন মোহর ধার্য্য করে কাজী অফিসে রেজিঃ মুলে বিয়ে করে। বিয়ের পরে যৌতুকের দাবীতে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতে থাকে। গত ২৬ আগষ্ট/১৫ ইং গভীর রাতে স্বামী রউফ শ্বশুর মোকছেদ আলী দুলালের নেতৃত্বে ভাড়াটিয়া কয়েকজন মুখোশধারী কর্তৃক ফাঁকা স্ট্যাম্পে সহি স্বার করার দাবীতে বেদম মারপিট করে অজ্ঞান করে মৃত্যু হয়েছে ভেবে পাষন্ডরা জাকিয়াকে মতিহারা মাদ্রাসার পার্শ্বে রাস্তায় ফেলে যায়। এ ঘটনায় পরদিন ভোরে জাকিয়াকে উদ্ধার করে নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করিয়ে থানায় অভিযোগ দাখিল করা হয়। পরে নির্যাতন করবেনা মর্মে অঙ্গীকার করে এবং বাড়িতে তুলে কিছুদিন পর আবার ২ ল টাকা যৌতুকের দাবী করে। ইতিমধ্যে জাকিয়ার গর্ভের ১টি কন্যা সন্তান বর্তমান বয়স ৪ মাস পেরিয়ে যাচ্ছে। সন্তানের মায়ায় জাকিয়া স্বামী, শ্বশুর-শ্বাশুড়ী, ননদ সহ পরিবারের অন্যান্যদের অমানুসিক নির্যাতন মুখ বুঝে সহ্য করে সংসার করতে থাকে। গত ৮ জুলাই শনিবার জাকিয়াকে তার স্বামী, শ্বশুর-শ্বাশুরী সহ পরিবারের অন্যান্যরা তালাক নামায় স্বার করতে চাপ দেয়। জাকিয়া অস্বীকার করায় তাকে বেদম মারপিট কিল ঘুষি ও লাথি মারে এবং টেনে হেচরে মাথার চুল ও পরনের কাপড় ছিড়ে ফেলে বিবস্ত্র করে। ঘটনাটি ফোনে অবহিত করলে নবাবগঞ্জ থানা পুলিশের সহায়তায় জাকিয়াকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়। ১২ জুলাই বিষয়টি জাকিয়ার মা বাদী হয়ে মামলা করার জন্য নবাবগঞ্জ থানায় অভিযোগ দাখিল করেন। এই মামলায় আসামী দুলালকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে নবাবগঞ্জ থানার মামলা নং- ৪৩, তাং- ১৭/০৭/১৭ইং।

আপনার মতামত লিখুন

রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ