মঙ্গলবার,১৬ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং,১লা কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ৪:০৯
প্রধানমন্ত্রী সৌদি আরব সফরে যাচ্ছেন আগামীকাল ১ নভেম্বর থেকে জেএসসি পরীক্ষার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন শ্রমিক’ থেকে ‘গণমাধ্যমকর্মী’ হলেন সাংবাদিকরা ৩০ জনকে নিয়োগ দেবে রানার গ্রুপ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত এখন ০১৩… নম্বরেও গ্রামীণফোন ঘিওরে পাঁচ প্রতিষ্ঠানকে অর্থদণ্ড

ডিজিটাল আর্থিক সেবা পাবে ১০ হাজার মুদি দোকানি

2 months ago , বিভাগ : অর্থনীতি,

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: তিন বছরের মধ্যে নিত্যপণ্য (মুদি দোকান) বিক্রি করে এমন ১০ হাজার ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাকে ডিজিটাল আর্থিক সেবায় নিয়ে আসতে চায় জাতিসংঘের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ইউএন ক্যাপিটাল ডেভেলপমেন্ট ফান্ড (ইউএনসিডিএফ)। এ জন্য প্রতিষ্ঠানটি জামালপুর, শেরপুর, টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জসহ দেশের চারটি অঞ্চলে পরীক্ষামূলক প্রকল্প হিসেবে কাজ করছে। ২০১৭ থেকে শুরু হওয়া এই প্রকল্প চলবে ২০১৯ সাল পর্যন্ত।

ছয়টি সমস্যা চিহ্নিত করে তা সমাধানে প্রাথমিকভাবে এই প্রকল্পের মাধ্যমে কাজ করা হবে। এসব সমস্যা সমাধানে চেষ্টা করার জন্য আর্থিক অনুদান দেওয়া হবে। আর সফল হলে এ প্রকল্পকে এগিয়ে নিতে আরো সহযোগিতা করা হবে। এক বছর পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর যে প্রকল্প সফল হবে এর মেয়াদ আরো বাড়ানো হবে এবং পর্যায়ক্রমে তা সারা দেশে ছড়িয়ে দেবে ইউএনসিডিএফ।

গতকাল বুধবার ‘ট্রান্সফরমিং বিজনেস থ্রো ডিজিটাল ফিন্যানশিয়াল সার্ভিস : চ্যালেঞ্জ অ্যান্ড অপরচুনিটিজ’ শীর্ষক কর্মশালায় বক্তারা এসব কথা বলেন। ইউএনসিডিএফ ও ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশন (এফবিসিসিআই) যৌথভাবে এ কর্মশালার আয়োজন করে।

রাজধানীর মতিঝিলে এফবিসিসিআইয়ের সম্মেলনকক্ষে এ কর্মশালার আয়োজন করা হয়। এতে বক্তব্য দেন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, ইউএনসিডিএফের কান্ট্রি প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর মো. আশরাফুল আলম, প্রজেক্ট ম্যানেজার রাজিব কুমার গুপ্ত, পিডাব্লিউসি টেকনোলজি কনসালটিংয়ের পার্টনার অরিজিত চক্রবর্তী, এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক সাফকাত হায়দার প্রমুখ।

বক্তারা জানান, সারা দেশে মুদি পণ্য বিক্রি করে এমন ক্ষুদ্র দোকান আছে প্রায় ১১ লাখ। এর সঙ্গে জড়িত আরো প্রায় ১৯ লাখ মানুষ। তার মধ্যে ৬৬ হাজার নারী উদ্যোক্তা। আর বার্ষিক বাজারের আকার এক হাজার ৮৩৫ কোটি ডলার (এক লাখ ৫৪ হাজার ১৪০ কোটি টাকা)।

কর্মশালায় বক্তারা জানান, সারা বিশ্বে প্রযুক্তিনির্ভর ব্যবসা-বাণিজ্য এগিয়ে যাচ্ছে। তাই আমাদের উদ্যোক্তারা যদি এর সঙ্গে খাপ খাওয়াতে না পারে তাহলে তাদেরও হারিয়ে যেতে হবে। এসব চ্যালেঞ্জ নিয়েই আজকের এই কর্মশালা। প্রযুক্তির সঙ্গে খাপ খাওয়াতে না পেরে ১২০ বছরের পুরনো প্রতিষ্ঠান আমেরিকার ইস্টম্যান কোডাক কম্পানিকে (বিশ্বের বিখ্যাত ছবির যন্ত্র তৈরির প্রতিষ্ঠান একটি বড় কম্পানি) মাত্র পাঁচ বছরেই হারিয়ে গেছে। তাই প্রযুক্তির বিবর্তনের সঙ্গে নিজেদের মধ্যে খাপ খাইয়ে নিতে এখন থেকেই কাজ করতে হবে।

শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, সারা বিশ্বের ব্যবসায়ীরাই এখন তাদের বাণিজ্যকে এগিয়ে নিতে ডিজিটাল আর্থিক সেবা গ্রহণ করছে। বাংলাদেশও ধীরে ধীরে এই সেবার আওতায় আসছে। সরকারি দপ্তরগুলোতে নাগরিকসেবা ব্যবস্থা প্রযুক্তির আওতায় নিয়ে আসার কাজ চলছে। ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদেরও এর আওতায় নিয়ে আসতে সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে। মো. আশরাফুল আলম বলেন, দেশের শহরাঞ্চলে মোবাইল আর্থিক সেবার (বিকাশ বা রকেট, ইউক্যাশ) মাধ্যমে পাঠাও বা সিএনজির ভাড়া পরিশোধ করা যায়। এমনকি কোনো কোনো সময় এখন রিকশা ভাড়াও দেওয়া যায়। কারণ তারা পকেটে নগদ অর্থ রাখতে চায় না। তবে শহরে এই পরিবর্তন শুরু হলেও গ্রামে হয়নি। তাই প্রযুক্তির মাধ্যমে গ্রামের ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের ডিজিটাল ফিন্যানশিয়াল সার্ভিসের আওতায় নিয়ে আসতে তিন বছর মেয়াদে কাজ করছে ইউএনসিডিএফ।

তিনি বলেন, ‘আমরা ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের ব্যবসাসংক্রান্ত প্রশিক্ষণ, ডিজিটাল ফিইন্যানশিয়াল সার্ভিস নিয়ে ধারণা দেওয়া এবং এ সেবা গ্রহণ করলে তারা কী কী সুবিধা পাবে সে সম্পর্কে ধারণা দিতে প্রশিক্ষণ দেব।’

ডিজিটাল আর্থিক সেবার সফলতার কথা উল্লেখ করে আশরাফুল আলম বলেন, বাংলাদেশে এটা প্রথম হলেও ভারত, কেনিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়াতে বেশ সফল হয়েছে। এই সেবা গ্রহণের পর তাদের ব্যবসার প্রবৃদ্ধি ও মুনাফা বেড়েছে। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশে নারী উদ্যোক্তাদের জামানতবিহীন ঋণ পেতে ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম নামে ইউএনসিডিএফের একটি প্রকল্প আছে। এ জন্য তিন কোটি টাকার তহবিল দেওয়া হয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংককে। কোনো ব্যাংক যদি নারী উদ্যোক্তাকে তার চাহিদা অনুসারে ঋণ না দেয় সে ক্ষেত্রে ঝুঁকি নেবে ইউএনসিডিএফ। বর্তমানে রাজশাহী এবং যশোর এলাকায় তিনটি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মাধ্যম ঋণ দেওয়া হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, ইউএনসিডিএফ জাতিসংঘের একটি অঙ্গপ্রতিষ্ঠান। বিশ্বের স্বল্পোন্নত দেশগুলোর (এলডিসি)  উন্নয়নে দুই ভাগে সরকারকে সহযোগিতা করে। একটি হলো অর্থনৈতিক অন্তর্ভুক্তি এবং অন্যটি স্থানীয় পর্যায়ে পুঁজিকে ব্যবহার উপযোগী করা। সূত্র: কালের কণ্ঠ

আপনার মতামত লিখুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ