বৃহস্পতিবার,২০শে জুলাই, ২০১৭ ইং,৫ই শ্রাবণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ৮:৩০

২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে শিশু শ্রম মুক্ত করা হবে ————-শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ৩৫তম বিসিএসে ক্যাডার পদে উত্তীর্ণ ১৫ প্রার্থীকে তলব জিমেইলে ভুলে পাঠানো বার্তা বাতিল করতে চান? সাইবার হয়রানি বেশি হয় ইনস্টাগ্রামে ‘নিউজ ফিড’ যুক্ত করছে গুগল কলাপাড়ায় ইয়াবাসহ দুই ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।। আসাদ-বিরোধী গেরিলাদের প্রতি সমর্থন বন্ধ করছেন ট্রাম্প

টঙ্গীতে বয়লার বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২১

fire-home_32911
মুক্তিনিউজ24.কম ডেস্ক: গাজীপুরের টঙ্গী বিসিক শিল্প নগরীতে প্যাকেজিং কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২১ জনে দাঁড়িয়েছে। ট্যাম্পাকো ফয়েলস নামে এই কারখানায় নিহতদের মধ্যে ১৫ জনের লাশ টঙ্গী হাসপাতালে রয়েছে। ৪ জনের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং ২ জনের লাশ উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রয়েছে।
নিহতদের মধ্যে কয়েকজনের পরিচয় জানা গেছে। তারা হলেন- জয়নাল আবেদিন (অপারেটর), আনোয়ার হোসেন (অপারেটর), শংকর (ক্লিনার), রেদোয়ান (দারোয়ান), জাহাঙ্গীর (নিরাপত্তাকর্মী), হান্নান মিয়া (নিরাপত্তাকর্মী), রফিকুল ইসলাম (শ্রমিক), ইদ্রিস, আল মামুন, নয়ন, সুভাষ, জাহিদুল, রাশেদ (রিকশাচালক)।
আজ শনিবার সকাল ৬টায় অগ্নিকাণ্ডের পর তা নেভাতে জয়দেবপুর, টঙ্গী, কুর্মিটোলা, সদর দফতর, মিরপুর ও উত্তরাসহ আশপাশের ফায়ার স্টেশনের কর্মীরা কাজ করছেন। অগ্নিকাণ্ডে ৫তলা কারখানা ভবনের দুটি তলা আংশিক ধসে গেছে।
বেলা সোয়া ১১টায়ও পাঁচতলা ওই ভবনে আগুন জ্বলছিল। বাতাসের কারলে আগুন নেভাতে বেগ পেতে হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।  টঙ্গী হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক মো. পারভেজ মিয়া জানান, হাসপাতালে নারী ও শিশুসহ ১৫ জনের লাশ রয়েছে।
শুরুতে কারখানা থেকে হাতহতদের উদ্ধার করে টঙ্গী হাসপাতালে নেয়া হলেও সেখান থেকে গুরুতর আহতদের ঢাকা মেডিকেল ও উত্তরা মেডিকেলে পাঠানো হয়।
উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার সাব্বির আহমেদ জানান, সেখানে নেয়া ২ জনের মৃত্যু হয়েছে।
ঢামেক পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া জানান, এই হাসপাতালে এক নারীসহ চারজনের লাশ রয়েছে। তা ছাড়া ভর্তি রয়েছেন আরো ১৯ জন।
ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটের আবাসিক চিকিৎসক পার্থ শঙ্কর পাল জানান, আহতদের মধ্যে ৩ জন তাদের তত্ত্বাবধানে রয়েছেন। এর মধ্যে একজনের শরীরের ছয় ভাগ, আরেকজনের ৮ ভাগ পুড়েছে। দীপন নামে একজনের শরীরের ৯০ ভাগ পুড়ে গেছে, তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।
ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা রফিকুজ্জামান জানান, সকাল ৬টার দিকে কাজ চলার সময় নিচ তলায় বয়লার বিস্ফোরণের পর কারখানার পুরো ভবনে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। কী কারণে বয়লার বিস্ফোরণ ঘটেছে, সে বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কিছু জানা যায়নি। পাওয়া যায়নি কারখানা কর্তৃপক্ষের কারো বক্তব্য।
গাজীপুরের পুলিশ সুপার হারুন উর রশীদ গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, আশেপাশের ভবনগুলোতে আগুন যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সেজন্য সতর্ক অবস্থায় রয়েছে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলের আশেপাশে অবস্থান নিয়েছে এবং উৎসুক জনতাকে সরিয়ে দিয়েছে। যাতে জানমালের ক্ষয়-ক্ষতি কমিয়ে আনা যায় তার জন্য সচেষ্ট রয়েছে আইন-শৃঙ্খলাবাহিনী।
গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এস এম আলম কারাখানা পরিদর্শনের পর ৫ সদস্েযর একটি তদন্ত কমিটি গঠনের কথা সাংবাদিকদের জানিয়েছেন। কমিটিকে ১৫ দিনের মধ্েয প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। এবিনিউজ
আপনার মতামত লিখুন

ঢাকা,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ