মঙ্গলবার,১৬ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং,১লা কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ২:৫৩
প্রধানমন্ত্রী সৌদি আরব সফরে যাচ্ছেন আগামীকাল ১ নভেম্বর থেকে জেএসসি পরীক্ষার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন শ্রমিক’ থেকে ‘গণমাধ্যমকর্মী’ হলেন সাংবাদিকরা ৩০ জনকে নিয়োগ দেবে রানার গ্রুপ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত এখন ০১৩… নম্বরেও গ্রামীণফোন ঘিওরে পাঁচ প্রতিষ্ঠানকে অর্থদণ্ড

চৌদ্দ বছর পরও পুঁজিবাজারে আসছে না বায়রা লাইফ, গুণছে জরিমানা

2 years ago , বিভাগ : অর্থনীতি,

%e0%a6%b2%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%ab-%e0%a6%87%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%b8%e0%a7%81মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: নির্ধারিত সময়ের পর আরো চৌদ্দ বছর পার হলেও এখনো পুঁজিবাজারে আসছে না বিমা খাতের কোম্পানি বায়রা লাইফ ইন্স্যুরেন্স।

বাজারে আসতে তেমন কোনো তৎপরতাও নেই কোম্পানির। এ কারণে কোম্পানিটিকে দিনে জরিমানা গুণতে হচ্ছে ৫ হাজার টাকা করে, যার সম্পূর্ণটাই গ্রাহকদের প্রিমিয়ামের টাকা।

শুধু তাই নয়, একদিকে কোম্পানিটি হাজারো বিমার দাবি পূরণে গড়িমসি করছে, অন্যদিকে ব্যবস্থাপনা ব্যয়ের নামে গ্রাহকদের কোটি টাকা লোপাট করছে, নিয়মিত অডিট রিপোর্ট দিচ্ছে না।

এসব কারণে সম্প্রতি প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ খতিয়ে দেখতে বিশেষ অডিটর নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)।

বিমা আইন অনুসারে, নিবন্ধিত হওয়ার ৩ বছরের মধ্যে বিমা কোম্পানিকে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজারে আসতে হয়। এ সময়ের মধ্যে আসতে না পারলে যুক্তিসঙ্গত কারণ দেখিয়ে আরো ৬ মাস বাড়াতে পারবে। কিন্তু বর্ধিত সময়ের মধ্যেও বাজারে আসতে না পারলে বিমা আইন ২০১০ এর ১৩০ ধারা অনুসারে, প্রথমে কোম্পানিকে মূল জরিমানা হিসেবে এককালীন ১০ হাজার টাকা দিতে হয়। এরপর যতোদিন আইপিওতে আসতে না পারবে, ততোদিন কোম্পানিকে প্রতিদিনের জন্য ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা দিতে হবে।

এ আইনটি হয় ২০১০ সালের মার্চ মাসে। তার আগের অর্থাৎ ১৯৩৮ সালের বিমা আইন অনুসারে আগের সময়ের জন্য দিনে ১ হাজার টাকা জরিমানা দিতে হয়েছে।

কোম্পানির সূত্র জানায়, ২০০০ সালের অক্টোবর মাস থেকে ব্যবসা চালু হওয়া প্রতিষ্ঠানটিকে পুরনো আইন অনুসারে ছয় বছরে (২০০৪ থেকে ২০১০ সালের এপ্রিল) ২১ লাখ ৯০ হাজার টাকা এবং ২০১০ সালের নতুন আইন অনুসারে সাড়ে ছয় বছরে ১ কোটি ১৭ লাখ ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা দিতে হয়েছে।

সব মিলে পুঁজিবাজারে না আসার দায়ে চলতি বছরের অক্টোবর পর্যন্ত ১ কোটি ৩৯ লাখ ২৫ হাজার টাকা জরিমানা গুণতে হয়েছে কোম্পানিটিকে।

কোম্পানিরে চেয়ারম্যান আবুল বাশার বাংলানিউজকে বলেন, ‘পুঁজিবাজারে আসার চেষ্টা করছি। এজন্য যথেষ্ট আন্তরিকতা নিয়ে কাজ করছি। মুনাফায়ও আছি। কিন্তু অ্যাকচুয়ারি প্রতিবেদন তৈরি করতে না পারার কারণে সময় লাগছে’।

তবে কতোদিনের মধ্যে বাজারে আসছেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

আইডিআরএ’র সদস্য ও মুখপাত্র জুবের আহমেদ খান বাংলানিউজকে বলেন, ‘প্রতিষ্ঠানটিকে পুঁজিবাজারে আনতে চেষ্টা করছি। বাজারে তালিকাভুক্ত হলে স্বাভাবিকভাবে কোম্পানিগুলোতে অনিয়ম কম হয়’।

তিনি বলেন, ‘বাজারে তালিকাভুক্ত না হলে জরিমানা গুণতে হবে। এ বিষয়ে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না’।

সূত্র: বাংলানিউজ

আপনার মতামত লিখুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ