বুধবার-২৪শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং-১১ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: দুপুর ১:৫১
চন্দনারানীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন পূঁজা উৎযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক দিলিপ চন্দ্র সাহা গাইবান্ধায় মন্দির ভিত্তিক প্রাক-প্রাথমিকের শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ গাইবান্ধায় অটোবাইকের ধাক্কায় আহত যুবকের মৃত্যু কামারপাড়া ইউনিয়নের নুরপুর গ্রামে বসতবাড়ি ও ফসলি জমি ঘেঁষে তিন ফসলি জমিতে ইটভাটা স্থাপন গ্রামীণ জনপদে সুইমিং পুল, রিসোর্ট- বাঘ, হরিন, হাতি, পাখির স্ট্যাচুসহ বিভিন্ন রাইড ও খেলনা বিনোদন প্রেমীদের জন্য ফারিহা গার্ডেন মনির হোসেন.বরিশাল ॥ দক্ষিণাঞ্চলে সড়ক পথে প্রথম সম্মুখ যুদ্ধে শহীদ হন চার মুক্তিযোদ্ধা বরিশালে বোরো ধানের বাম্পার ফলনেও হাসি নেই কৃষকের

গ্রহাণুর ‘মৃত্যু দৃশ্য’!

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: এবার মহাকাশে একটি বিরল ঘটনা দেখা গেল। মহাকাশের অতল অন্ধকারে কিভাবে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যায় কোনো গ্রহাণু তা ধরা পড়ল হাব্ল স্পেস টেলিস্কোপের চোখে!

দেখা গেল, মৃত্যুপথযাত্রী ওই গ্রহাণুটির শরীর থেকে বেরিয়ে আসছে তার ‘হাড়-মাংস-অস্থি-মজ্জা’। ভেঙে যাচ্ছে তার শরীর, খুব দ্রুত। আর শরীর ছেড়ে বেরিয়ে আসা অংশগুলো মহাকাশে তৈরি করছে লেজ। একেবারে ধূমকেতুর মতোই। তবে সেই লেজ একটি নয়, দুটি।
মহাকাশে থাকা নাসার টেলিস্কোপ হাবেলর দেখা সেই মৃত্যু দৃশ্যের খুঁটিনাটি প্রকাশিত হতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান সাময়িকী ‘অ্যাস্ট্রোফিজিক্যাল জার্নাল লেটার্স’-এ। হাব্ল যে সেই গ্রহাণুর মৃত্যু দৃশ্য দেখেছে তার নাম ‘অ্যাস্টারয়েড ৬৪৭৮ গল্ট’। ভগ্নস্বাস্থ্য সেই গ্রহাণুটি আছে সূর্য থেকে ২১ কোটি ৪০ লাখ মাইল বা ৩৪ কোটি ৪০ লাখ কিলোমিটার দূরে।

গ্রহাণুটির ওপর যাঁরা নজর রেখেছিলেন, তাঁদের একজন জ্যোতির্বিজ্ঞানী কুমার রঙ্গনাথ বলেন, ‘যে দুটি লেজ দেখা গেছে গ্রহাণুটির, তার একটি লম্বায় পাঁচ লাখ মাইল বা আট লাখ কিলোমিটার। চওড়ায় সেটি তিন হাজার মাইল বা চার হাজার ৮০০ কিলোমিটার। যে লেজটি আকারে ছোট, লম্বায় সেটি এক লাখ ২৫ হাজার মাইল বা দুই লাখ কিলোমিটার।’

আড়াই মাইল বা চার কিলোমিটার চওড়া গ্রহাণু ‘গল্ট’র কথা প্রথম জানা গিয়েছিল ১৯৮৮ সালে। কিন্তু তখন তাকে আর পাঁচটা সাধারণ গ্রহাণুর মতোই একটি পাথুরে মহাজাগতিক বস্তু হিসেবেই মনে করেছিলেন জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা। তার কোনো লেজের কথা তখন জানা যায়নি।সূত্র: বাংলাদেশপ্রতিদিন

আপনার মতামত লিখুন

তথ্য-প্রযুক্তি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ