মঙ্গলবার,১৭ই জানুয়ারি, ২০১৭ ইং,৪ঠা মাঘ, ১৪২৩ বঙ্গাব্দ, সময়: সন্ধ্যা ৬:৫৫
২ এপ্রিল এইচএসসি পরীক্ষা শুরু ! পার্বতীপুরে রেল ইঞ্জিন থেকে তেল পাচার॥ দুই চালক বরখাস্ত ধোলাইখালে ট্রাকের ধাক্কায় চাচা-ভাতিজা নিহত সিরিয়ায় নিজ নৌ এবং বিমান ঘাঁটিগুলোর উন্নয়ন করবে রাশিয়া সাত খুনের মামলার রায় ন্যায় বিচারের প্রমাণ : ওবায়দুল কাদের সাথীর লাকি সেভেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়মিত খেলাধুলার চর্চা বাড়াতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী

খাদিজা হত্যাচেষ্টা মামলা যাচ্ছে দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে

justice_37796
মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: বহুল আলোচিত সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসের উপর নৃশংস হামলাটি দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হচ্ছে। শুক্রবার সিলেটের জেলা প্রশাসক জয়নাল আবেদীন এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি জানান, এ মামলাটির বিচার দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তরের উদ্যোগ নেয়া হবে। তিনি বলেন, সিলেটে অত্যন্ত দ্রুত সময়ের মধ্যে শিশু রাজন হত্যার বিচার হয়েছে। একইভাবে খাদিজা হত্যাচেষ্টার বিচারও দ্রুততম সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করতে পুলিশ ও জেলা প্রশাসন সমন্বিত উদ্যোগ নিয়েছে। তিনি আরও বলেন, তদন্ত শেষে পুলিশ আদালতে অভিযোগপত্র প্রদান করবে। সেটি গৃহিত হলে মামলাটি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তরের জন্যে প্রস্তাব পাঠানো হবে।
সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (দক্ষিণ) জেদান আল মূসা জানান, মামলার প্রাথমিক তদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। ১৬৪ ধারায় আদালতে আসামি বদরুলেরর জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়েছে। খাদিজা হত্যাচেষ্টায় ব্যবহৃত চাপাতিসহ অন্যান্য আলামত জব্দ করা হয়েছে। তিনি বলেন, শুক্রবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তার পক্ষ থেকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও ঢাকার স্কয়ার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বরাবরে খাদিজার চিকিৎসা সনদের জন্য আবেদন করা হয়েছে।
প্রসঙ্গত গত ৩ অক্টোবর সোমবার বিকেলে সিলেট এমসি কলেজের পরীক্ষার হল থেকে বের হওয়ার পর খাদিজাকে হত্যার উদ্দেশ্যে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেন বদরুল নামের এক যুবক। খাদিজার সহপাঠীসহ স্থানীয় জনতা বদরুলকে পুলিশে দেন। বদরুলের বাড়ি সুনামগঞ্জের ছাতকে। বদরুল শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের চতুর্থ বর্ষের দ্বিতীয় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী। এ ঘটনায় ৪ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাকে সাময়িক বহিষ্কার করে।
আপনার মতামত লিখুন

আইন ও আদালত বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ


%d bloggers like this: