শুক্রবার,২৩শে জুন, ২০১৭ ইং,৯ই আষাঢ়, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: ভোর ৫:৫৯

নাটোরের গুরুদাসপুর পৌরসভার সাড়ে ১৮ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা বাগাতিপাড়ার দরিদ্র মেধাবী সজনীকে ল্যাপটপ দিলেন ইউএনও পাঁচবিবিতে নগত অর্থ বিতরণ সৈয়দপুরে সুবিধা বঞ্চিতদের পাশে খুচরা পয়সা সংগঠন ইটভাটার কালোধোঁয়ায় ফসলের তিপূরণের দাবিতে কৃষকদের মানববন্ধন লালমনিরহাটে হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় ১ম স্থান অধিকার বায়তুল মুকাররমে পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজের সময়সূচি

কোহলিদেরও ‘শিক্ষা’ হলো

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক:  ম্যাচের মাঝে যখন ভারতের অবস্থা খারাপ, তখন তাঁকে বেশ কয়েকবার দেখাল টেলিভিশন ক্যামেরায়। গোমড়া মুখ বিরাট কোহলির। কিন্তু শেষ পর্যন্ত দল যখন হেরেই গেল, আর গোমড়া মুখ করে থাকেননি ভারত অধিনায়ক। বুকে যন্ত্রণা চেপে একচিলতে হাসি নিয়েই মাঠে নেমে এলেন পাকিস্তানকে অভিনন্দন জানাতে। ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনেও মুখে হাসি ধরে রাখেন কোহলি।

চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের কাছে হার, সেটাও আইসিসির টুর্নামেন্টের ফাইনালে। কোহলি উল্টো উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করলেন পাকিস্তানের। স্বীকার করে নিলেন পাকিস্তানের শ্রেষ্ঠত্ব, ‘পাকিস্তানকে অভিনন্দন, দারুণ এক টুর্নামেন্ট কাটাল ওরা। যেভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে, তাতে ওদের প্রতিভা বোঝা যায়। আবারও প্রমাণ করেছে, নিজেদের দিনে যেকোনো প্রতিপক্ষের বিপক্ষে অঘটন ঘটাতে পারে ওরা। আমাদের জন্য এটি হতাশার, তবু হাসতে পারছি, কারণ ভালো খেলেই ফাইনালে এসেছি। ওদের কৃতিত্ব দিতে হচ্ছে, আমাদের প্রতিটি বিভাগে হারিয়ে দিয়েছে। খেলায় এটাই হয়।’

সংবাদ সম্মেলনের শুরুটা অবশ্য হয়েছিল এক সাংবাদিকের সঙ্গে বাদানুবাদে। যে ফখর জামানের ইনিংস পরশু রানের পাহাড়ে চড়িয়েছে পাকিস্তানকে, তিনি কিন্তু আউট হতে পারতেন শুরুতেই। জসপ্রিত বুমরার বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়েও নো বল হওয়ায় বেঁচে যান। পরে ১১৪ রানের ইনিংসে পাকিস্তানকে ম্যাচ জিতিয়েছেন এই ওপেনার। প্রশ্নকর্তা সাংবাদিক সেটি মনে করিয়ে দিয়ে কোহলিকে জিজ্ঞেস করলেন, ‘ওই নো বলে আউট ছাড়া কী কী সুখের মুহূর্ত ম্যাচ থেকে পেলেন?’ কোহলি কিছুটা খেপে গিয়েই জবাব দেন, ‘সুখের মুহূর্ত মানে? আমি বুঝতেই পারছি না আপনি কী বলছেন।’ পরে অবশ্য নিজেকে সামলে নিয়ে বলেছেন, ‘নো বলে আউট কি কখনো সুখের মুহূর্ত হয়!’ কোহলি এই ভুলটাকে খুব বড় করে দেখলেন না, ‘হ্যাঁ, ক্রিকেটে ছোট ছোট ঘটনাই বড় হয়ে ওঠে। তবে ফাইনাল হলেও একটা ম্যাচই তো হেরেছি। আমাদের ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে এগোতে হবে।’

অথচ এই ফাইনালে ভারতকেই এগিয়ে রেখেছিল ক্রিকেট-বিশ্ব। তবে কি পাকিস্তানকে হালকাভাবে নিয়েই হেরে গেছে ভারত? কোহলি নিজেও কারণ খুঁজছেন এমন ব্যর্থতার। তবে তালিকায় পাকিস্তানকে হালকা করে নেওয়ার কোনো প্রমাণ পাননি, ‘আমরা কাউকেই হালকাভাবে নিইনি। কিন্তু ওরা আমাদের চেয়ে বেশি আবেগ নিয়ে খেলেছে। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি কিন্তু বোলিংয়েও ওরা আক্রমণাত্মক ছিল। হার্দিক ছাড়া আমাদের কেউ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারেনি।’ এএফপি, ডেকান ক্রনিকল।

আপনার মতামত লিখুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ