সোমবার,২৪শে জুলাই, ২০১৭ ইং,৯ই শ্রাবণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১২:৩৪

জলঢাকায় প্রাথমিক শিক্ষা পরিবারের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষকগণের বৃক্ষরোপন কর্মসূচী পালন পার্বতীপুরে ২০৭ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বৃক্ষ রোপন দায়িত্ব পালনে উদ্ভাবনী শক্তি কাজে লাগাতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ঝিনাইগাতীতে ১১দফা দাবি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে শিক্ষক-কর্মচারী ফ্রন্টের সমাবেধ ও মিছিল চিরিরবন্দরেজাতীয়পাবলিকসার্ভিসদিবসউদযাপন লালপুরে জাতীয়করণের দাবিতে বেসরকারি শিক-কর্মচারীদের মানববন্ধন সেন্সরে যাচ্ছে ‘ফিফটি ফিফটি লাভ’

কাজিরাঙা জঙ্গলের অর্ধেকই পানির নিচে, বিপন্ন পশুরা

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: উত্তর-পূর্ব ভারতের আসাম রাজ্যের বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হলেও প্রাণহানির ঘটনা বাড়ছে। মানুষের পাশাপাশি বন্য পশুরাও মারা পড়ছে। ৪৩০ বর্গকিলোমিটার আয়তনের বিখ্যাত কাজিরাঙা জাতীয় উদ্যানের ৫২ শতাংশ এলাকা এখনো পানির নিচে।

সরকারি হিসাবে, এখন পর্যন্ত আসামে বন্যাজনিত কারণে ৫৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। দুই দিন ধরে ব্রহ্মপুত্রসহ প্রধান প্রধান নদীগুলোর পানি কমতে শুরু করলেও পরিস্থিতির উন্নতি হয়নি। রাজ্যের ৩৩টি জেলার মধ্যে ২৪টি জেলাই বন্যাকবলিত।

কাজিরাঙা জঙ্গলের অন্তত ৭০টি জন্তু বন্যার শিকার হয়েছে। বন দপ্তরের কর্মকর্তাদের তথ্য অনুযায়ী, তিনটি গন্ডারশাবক, একটি চিতার বাচ্চা, একটি বুনো মোষসহ বেশ কিছুসংখ্যক হরিণ বন্যায় ভেসে গেছে।

বন্যার কারণে পরিস্থিতি এলোমেলো হয়ে পড়ায় কাজিরাঙায় চোরা শিকারিরা সক্রিয় হয়ে পড়েছে। চোরা শিকার রুখতে এ জাতীয় উদ্যানে ৯৩টি নজরদারি ক্যাম্প খোলা হয়েছিল। বন্যার কারণে সেসব ক্যাম্পের অধিকাংশই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

সরকারি সূত্রে জানানো হয়েছে, রাজ্যের ২৪ জেলার ১ হাজার ৭৯৫টি গ্রামের প্রায় ১২ লাখ মানুষ বন্যাকবলিত হয়ে পড়েছে। ৬৬ হাজার ৫১৬ হেক্টর কৃষিজমি এখনো পানির নিচে। ১২৯টি ত্রাণশিবিরে ২৫ হাজারেরও বেশি মানুষ আশ্রয় নিয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ