বৃহস্পতিবার-২১শে মার্চ, ২০১৯ ইং-৭ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ১১:২৮
পার্বতীপুরের বড়পুকুরিয়ায় কয়লা উত্তোলন বন্ধ ওবায়দুল কাদেরের বাইপাস সার্জারি সফল ২৬শে মার্চ সারা দেশে একযোগে জাতীয় সংগীত তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষা থাকছে না ঢাকায় নিয়োগ দেবে আম্বার গ্রুপ চাকরির সুযোগ দেবে নোভারটিস বাংলাদেশ নিয়োগ দেবে ইন্টারকন্টিনেন্টাল, ঢাকা

কাগজপত্র না পাওয়ায় অভিযোগ গঠনের শুনানি পেছাল

3 weeks ago , বিভাগ : রাজনীতি,

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক:  গ্যাটকো দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না পাওয়ায় অভিযোগ গঠন (চার্জ) বিষয়ে শুনানির সময় পেলেন। গতকাল বুধবার খালেদা জিয়াসহ ১৮ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন বিষয়ে শুনানির দিন ধার্য ছিল। কিন্তু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না থাকায় খালেদার পক্ষে শুনানির জন্য সময়ের আবেদন করলে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৩-এর বিচারক আবু সৈয়দ মো. দিলজার হোসেন শুনানির তারিখ পিছিয়ে আগামী ১৮ মার্চ ধার্য করেন।

ঢাকার বকশীবাজারে কারা অধিদপ্তরের প্যারেড মাঠে স্থাপিত আদালতে দুপুরের দিকে খালেদা জিয়াকে হুইলচেয়ারে করে কারাগার থেকে আনা হয়। পরে খালেদা জিয়ার পক্ষে আইনজীবীরা শুনানি পিছিয়ে দেওয়ার আবেদন করেন।

অ্যাডভোকেট মাসুদ আজমেদ তালুকদার, জিয়া উদ্দিন জিয়া ও জয়নাল আবেদীন মেজবা আদালতকে বলেন, আগের ধার্য তারিখে মামলার আলামতসংক্রান্ত জব্দ তালিকা ও অন্য কাগজপত্র সরবরাহের জন্য আবেদন করলে আদালত তা মঞ্জুর করেন। কিন্তু সেগুলো এখনো পাওয়া যায়নি। অথচ অভিযোগ গঠন বিষয়ে শুনানির জন্য ওই সব কাগজপত্র প্রয়োজন। তাই সময় চাওয়া হচ্ছে। আদালত সময়ের আবেদন মঞ্জুর করেন।

এর আগে গত ৭ ফেব্রুয়ারি দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল খালেদা জিয়াসহ সব আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের আরজি জানিয়ে শুনানি শেষ করেন।

২০০৭ সালের ২ সেপ্টেম্বর দুদকের উপপরিচালক গোলাম শাহরিয়ার চৌধুরী সাবেক চারদলীয় জোট সরকারের তত্কালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া, তাঁর ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোসহ ১৩ জনের নামে তেজগাঁও থানায় গ্যাটকো কেলেঙ্কারির এ মামলা করেন। মামলার পরদিন খালেদা জিয়া ও কোকোকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পরের বছর ১৩ মে খালেদা জিয়াসহ ২৪ জনের নামে এই মামলার অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। মামলার অভিযোগপত্রে বলা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান গ্যাটকোকে ঢাকার কমলাপুর আইসিডি ও চট্টগ্রাম বন্দরের কনটেইনার হ্যান্ডলিংয়ের কাজ পাইয়ে দিয়ে রাষ্ট্রের ১৪ কোটি ৫৬ লাখ ৩৭ হাজার ৬১৬ টাকার ক্ষতি করেন।

সূত্র: কালের কন্ঠ

আপনার মতামত লিখুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ