বুধবার,১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং,২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১০:৫৮
অবকাঠামো ও জ্বালানি খাতে ফরাসি বিনিয়োগের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পার্বতীপুরে শিক্ষক সমিতির ত্রিবার্ষিক কাউন্সিল সম্পন্ন সৈয়দপুরে স্কুল মাঠে পাথড় ও পিচ গলানো হচ্ছে পার্বতীপুরে মধ্যপাড়া পাথর খনির ৪৫ শ্রমিক পুরস্কৃত এবার হাইকোর্টে ক্ষমা চাইলেন লক্ষ্মীপুরের সেই এডিসি মগবাজারে গ্যাসের আগুনে দগ্ধ ৩ সেলুনকর্মী তাঁরা এলেন ‘ম্যাজিস্ট্রেট’ হয়ে, গেলেন আসামি হয়ে

কাউন্টিতে সাসেক্সের হয়ে অভিষেকে মুস্তাফিজের শিকার ৪ উইকেট!

1 year ago , বিভাগ : খেলাধুলা,
25_22542
মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেক্স:  ন্যাটওয়েস্ট টি-টোয়েন্টি ব্লাস্টে সাসেক্সের হয়ে অভিষেক ম্যাচে মুস্তাফিজের দাপুটে বোলিংয়ে বড় জয় পেয়েছে সাসেক্স। অভিষেক ম্যাচে তার দুর্দান্ত বোলিং তোপে হার মেনেছে দ: আফ্রিকার জাতীয় দলের তারকা ব্যাটসম্যানরা। এর মধ্যে একই ওভারে ৩ টি উইকেট শিকার করেন তিনি। তার প্রথম শিকার প্রোটিয়া অধিনায়ক হাশিম আমলা। দ্বিতীয় শিকার জে পি ডুমিনি। আর তৃতীয় শিকার ডি কক।
টসে জিতে এসেক্স ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়। শুরুতেই ব্যাট করতে নেমে রানের ঝড় তুলেন দলীয় অধিনায়ক লুক রাইট এবং ক্রিস নাস। ৫ ওভারে দুইজন করে ৪৩ রান। নাস অাউট হয় ২৫ রানে ও রাইট হয় ৩৩ রানে। নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটার রস টেইলার করেন ২৪ রান। শেষের দিকে ক্রিচ জর্ডনের ঝড়ো ৪৫ রানের উপর ভর করে ২০১ রানের টার্গেট দেয় সাসেক্স। শুরু থেকে ভালো ব্যাট করতে থাকে এসেক্স। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে মুস্তাফিজের হাতে ক্যাচ দিয়ে অাউট হয় ব্রাউন। প্রথম ৫ ওভারে অাসে ৫০ রান। এ দিন বাকি বোলাররা ছিলেন রান মেশিন। দারুন একটা জুটি গড়েন অাজহার জাইদি এবং রাভি বোপারা। দুজন মিলে ২০ বলে করেন ৪১ রান। জাইদি ১৮ করে রান অাউট হয়। কিন্তু এক পাশ থেকে ভালো খেলতে থাকেন রাভি বোপারা।

কিন্তু মুস্তাফিজের বোলিং জাদু দেখার জন্য যেন অপেক্ষায় ছিল পুরো গ্রেট ব্রিটেন। কাউন্টি ক্রিকেট যেন জমছিল না মুস্তাফিজ বোলিং না করা পর্যন্ত। অবশেষে মুস্তাফিজ এলেন, নামলেন আর যেন জয় করে নিলেন। ষষ্ঠ ওভারে অধিনায়ক রাইট বল তুলে দেন মুস্তাফিজের হাতে। প্রথম ওভারে দেন মাত্র ৪ রান। সাসেক্সের অধিনায়ক শেষ সময়ের জন্য বাঁচিয়ে রেখেছিলেন মুস্তাফিজের ওভার। তার আস্থার প্রতিদান দিতে ভুল করেননি কাটার মাস্টার।

১৫ তম ওভারে বোলিংয়ে অাসেন মুস্তাফিজ। শুরু হয় মুস্তাফিজের উইকেট ঝড়। নিজের দ্বিতীয় ওভারেই বোপারাকে অাউট করে প্রথম উইকেট পান মুস্তাফিজুর রহমান। দ্বিতীয় ওভারে দেন মাত্র ২ রান। তৃতীয় ওভারেও উইকেট পেলেন মুস্তাফিজ। ফোস্টার এবং টেইলারকে বোল্ড করেন তিনি।

মুস্তাফিজের করা শেষ ওভারে এসেক্সের দরকার ছিল ৩৫ রান। প্রথম বলটি ডট দেওয়ার পর পরের বলে রায়ান টেন ডেসকাটেকে ফিরিয়ে দেন পেস বোলিংয়ের এই সেনসেশন।
ইংল্যান্ডে অভিষেকটা স্মরণীয় করে রাখলেন কাটার মাস্টার। ৪ ওভার বল করে দিলেন মাত্র ২৩ রান আর নিলেন চার-চারটি উইকেট। শুধু তাই নয়, সাসেক্সকে ২৪ রানের দুর্দান্ত একটি জয়ও উপহার দিয়ে দিলেন তিনি।
আপনার মতামত লিখুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ