বৃহস্পতিবার,১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং,২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ১০:২৩
স্বাধীনতার শত্রুদের উচিত জবাব নৌকায় ভোট যতই ষড়যন্ত্র হোক আমি ভয় পাই না: প্রধানমন্ত্রী পলাশবাড়ীতে ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস পালিত নৌকায় ভোট দিয়ে সন্ত্রাসীদের ক্ষমতায় আসার পথ বন্ধ করুন পলাশবাড়ীতে চাল ক্রয়ের উদ্বোধন গোবিন্দগঞ্জে দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার পার্বতীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত বিজিবি সদস্যের মৃত্যু

“কলাপাড়ায় অস্টম শ্রেণির ছাত্রীকে পুত্রবধু করতে তুলে নেয়ার জন্য বাবাকে ছেলে পক্ষের হুমকি”

কলাপাড়া(পটুয়াখালী) প্রতিনিধি।।
অষ্টম শ্রেণি পড়–য়া মেয়েকে জোড় পূর্বক বিয়ে করার হুমকি দেয়ার ঘটনায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে ছাত্রীর বাবা-মা। আতংকিত হয়ে এখন মেয়েকে স্কুলে একাটা পাঠাতেও ভয় পাচ্ছেন। ভীতসন্তস্থ্য ছাত্রীর পিতা কাঞ্চন গাজী এ ঘটনার বিচার চেয়ে শনিবার ইউপি চেয়ারম্যান ও স্কুল শিক্ষকদের কাছে অভিযোগ করেছেন। পটুয়াখালীর কলাপাড়ার ধুলাসার ইউনিয়নের নতুনপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।
জানাযায়, উপজেলার চর চাপলী ইসলামিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অস্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে (১৩) পুত্রবধু করার জন্য ওই ছাত্রীর পিতা কাঞ্চন গাজীকে প্রস্তাব নিজাম হোসেন ও তার স্বজনরা। কিন্তু সে বিয়েতে রাজি না হওয়ায় মেয়েকে তুলে নিয়ে বিয়ে দেয়ার হুমকি দেয় তারা। এ ঘটনায় ভীতসন্তস্থ্য ছাত্রীর পিতা ধুলাসার ইউপি চেয়ারম্যান আঃ জলিল আকন ও চর চাপলী ইসলামিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কাছে মেয়ের নিরাপত্তা দাবি করেন।
স্কুল ছাত্রীর পিতা কাঞ্চন গাজী বলেন, পেশায় মৎস্য ব্যবসায়ী হলেও তার ইচ্ছা মেয়েকে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করবেন। কিন্তু গত কয়েক মাস ধরে স্থানীয় জনৈক নিজাম হোসেনের ছেলের সাথে তার মেয়ের বিয়ের জন্য চাপ দেয়া হচ্ছে। তাই পরিবারের নিরাপত্তার কথা ভেবে বিষয়টি শনিবার চেয়ারম্যান মহোদয়কে জানিয়েছেন। তিনি একাকী মেয়েকে স্কুলে পাঠাতেও ভয় পাচ্ছেন। তাই বাধ্য হয়ে তিনি এখন মেয়েকে স্কুলে নিয়ে যাচ্ছেন এবং ছুটির পর বাড়ি নিয়ে যাচ্ছেন।
চর চাপলী ইসলামিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গাজী আলী আহমেদ জানান, এ বিষয়টি তিনি আগেই জেনেছেন। ওই ছাত্রীর নিরাপত্তার দায়িত্ব স্কুলের শিক্ষকরা নিয়েছেন। কিন্তু তারপরও বিয়ের জন্য চাপ দেয়া হচ্ছে বলে ছাত্রীর পিতা তাদেরকে অবহিত করেছেন। ওই ছাত্রীর লেখাপড়া চালু এবং যাতে বাল্যবিয়ে না হয় সেজন্য তারাও বিষযটি স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিদের জানিয়েছেন এবং নিজাম হোসেনের ছেলেকেও তারা সতর্ক করে দিয়েছেন।
এ বিষয়ে নিজাম হোসেনের সাথে একাধিকবার মুঠো ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। তবে তার এক স্বজন জানিয়েছেন, বিয়ে না দিলে তুলে নেয়ার কথাটি হাসি ঠাট্রায় বলা হয়েছে। কোন ধরনের চাপ প্রয়োগ করা হয়নি।
এ ব্যপারে ধুলাসার ইউপি চেয়ারম্যান আঃ জলিল আকন জানান, ওই স্কুলে ছাত্রীকে বিয়ের জন্য যে চাপ দেয়া হচ্ছে বিষযটি সত্য। ছাত্রীর পিতা তার কাছে অভিযোগ করেছেন। তিনি নিজাম হোসেনের পরিবারকে এ বিষয়ে সতর্ক করে দিয়েছেন। এ বিষয়ে ছেলেপক্ষ বাড়াবাড়ি করলে উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার মতামত লিখুন

বরিশাল,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ