মঙ্গলবার-১৯শে মার্চ, ২০১৯ ইং-৫ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সময়: বিকাল ৪:৩৩
রঙিন বিদ্যালয় তবু ঝুঁকি নিয়ে লেখাপড়া পৌত্তলিক পরিবেশ ত্যাগ করে অনুগ্রহে সিক্ত ইবরাহিম (আ.) গাজীপুরে নিয়োগ দেবে এসকেএফ ফার্মাসিউটিক্যালস ঢাকায় ২৫০ জনকে নিয়োগ দেবে ডিজিকন টেকনোলজিস লালমনিরহাট আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস দালালের মাধ্যম ছাড়া কাগজ প্রসেস হয়না রংপুর-বগুড়া মহাসড়কের ধাপেরহাটের ফাইভস্টার মোড় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩ আহত ৬ কলাপাড়ায় শিশু স্বাস্থ্য বিষয়ক নিউট্রিওয়াশ প্রকল্পের পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত

ওজন কমাতে গরম পানি, না-কি ঠাণ্ডা?

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: ১। কোনটি স্বাস্থ্যকর: গরম না-কি ঠাণ্ডা?
বলা হয় জীবনের ওপর নাম পানি। উপাদানটি কেবল জীবন বাঁচায় তা নয়, শরীর উপযুক্ত রাখতে পানি হলো সবচেয়ে সহজলভ্য যা কেবল বিপাক ক্রিয়ায় সাহায্য করে তা নয়, ওজন হ্রাসেও সহায়তা করে।

ক্যালোরিমুক্ত এই উপাদান শরীরের ক্যালোরি ধ্বংস করতেও সাহায্য করে। কিন্তু পানি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে মানুষের ভেতর একটি প্রশ্ন, গরম কুসুম গরম না-কি ঠাণ্ডা- ওজন হ্রাসের জন্য কোনটি ভালো?

নিচের লেখাটি এর উত্তর খুঁজে পেতে সাহায্য করবে:

২। পানি ও ওজন হ্রাস
পানীয় জল কেবল আপনার তৃষ্ণা মেটাবে তা নয়, এটি শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করতেও সাহায্য করে। বিশেষজ্ঞদের মতে, খাবারের আগে পানীয় জল ক্ষুধা কমাতে পারে এবং একইভাবে পরোক্ষভাবে ওজন কমাতেও সাহায্য করে। এটি প্রমাণিত যে গরম পানি শরীরের তাপমাত্রা বাড়িয়ে বিপাকে সাহায্য করে। সকালে খালি পেটে গরম পানি পান করলে ঘুমের সময় শরীরে তরল পদার্থের যে ঘাটতি তৈরি হয় তা পূরণে সাহায্য করে। যদিও আমরা জানি যে উষ্ণ পানি পান করলে ওজন কমাতে সাহায্য করে, তবে ঠাণ্ডা পানি এবং কুসুম গরম পানি ওজন কমাতে পারে বলে প্রচলিত ধারণা নিয়ে বিতর্ক রয়েছে।

৩। কেন গরম পানি?
বিশেষজ্ঞদের মতে, পানির তাপমাত্রা হজম প্রক্রিয়ার পর চটচটে বর্জ্য পদার্থ অপসারণ করে। এতে আপনি হালকা বোধ করেন এবং হজম প্রক্রিয়াকে মসৃণ করে তোলে। আয়ুর্বেদ শাস্ত্র মতে, প্রতিদিন সকালে গরম পানির সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে খেলে শরীরের ক্যালোরি খরচ হয়। ফলে ওজন কমে।

৪। ঠাণ্ডা পানি ও ওজন হ্রাস
কিছু গবেষণায় ঠাণ্ডা পানি পানের উপযোগিতার বিষয়টি তুলে ধরা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, যখন আমরা ঠাণ্ডা পানি পান করি, তখন আমাদের শরীর অতিরিক্ত ক্যালোরি খরচ করে দেহের অভ্যন্তরীণ তাপমাত্রা অনুযায়ী পানি গরম করে। ফলে শরীরের চর্বি ঝরে যায়।

ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটন পরিচালিত গবেষণায় দেখানো হয়েছে যে, এক গ্লাস ঠাণ্ডা পানি পান করার পর মানব শরীরের অভ্যন্তরীণ তাপমাত্রা অনুযায়ী তা গরম করতে শরীরের আট ক্যালোরি খরচ হয়। সেই হিসেবে দৈনিক আট গ্লাস পানি পান করলে খরচ হয় ৬৪ ক্যালোরি। এটি প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম।

ফলে ঠাণ্ডা পানি পান করলে কিছু শারীরিক ক্রিয়াকলাপ দ্বারা বাড়তি ক্যালোরি খরচের পরামর্শ দেওয়া হয়।

৫। কেন কুসুম গরম পানি ভালো?
স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, কুসুম গরম পানির কোনো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই। এটি কেবল ক্যালোরি খরচ করে তা-ই নয়, বাইরের যে কোনো তাপমাত্রায় এটি পান করা যায়।

৬। যথেষ্ট পানি পানের ধারণা
যদি আপনি কেবল পানি পানের মাধ্যমে শরীরের ওজন হ্রাস করতে চান তবে আপনাকে সারা দিন যথেষ্ট পরিমাণ পানি পান করতে হবে। যদিও দিনে আট গ্লাস পানি শরীরের জন্য ভালো। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, আপনার শরীরের যে পরিমাণ পানি প্রয়োজন তা নির্ভর করে আপনার ওজন এবং কার্যকলাপের স্তরের ওপর। সুতরাং, নিশ্চিত হন, আপনার শরীরের ওজন অনুযায়ী আট গ্লাসের বেশি প্রয়োজন আছে কি-না। যদি প্রয়োজন থাকে তবে আপনাকে তরমুজ, স্ট্রবেরি এবং লেবু শসা ইত্যাদি খেয়ে সেই অভাব পূরণ করতে হবে।সূত্র: কালের কন্ঠ

আপনার মতামত লিখুন

লাইফস্টাইল বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ