শুক্রবার,২৪শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং,১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ৪:২৪
হবিগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩ ২০১৯ সালের মধ্যে ১শ’ কারিগরি স্কুল-কলেজ হচ্ছে পার্বতীপুরে মধ্যপাড়া পাথর খনির ২৫ শ্রমিক পুরস্কৃত আক্রোশের বলি কোমলমতি পরীার্থীরা হবিগঞ্জে মাইক্রোবাস মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ৩ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের সাথে পরিবহন শ্রমিকদের সংঘর্ষে ৪ জন আহত তুচ্ছ ঘটনায় দিনাজপুরে ২টি বাসে আগুন ॥ সমঝোতা বৈঠক সিদ্ধান্ত ছাড়াই শেষ ॥ অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট ॥ চরম দুর্ভোগে জনসাধারণ ফুলবাড়ীতে আন্ত : সম্পর্ক উন্নয়ন সভা অনুষ্ঠিত

আসুন, সবাই মিলে সন্ত্রাসবাদ প্রতিহত করি : এরশাদ

ershad_21376মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেক্স: সন্ত্রাসবাদ রুখতে সবাইকে নিয়ে জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়ে জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, আমরা রক্তের নয়, শান্তির বৃষ্টিতে সবাইকে ভিজতে চাই। প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, আমরা কোথায় যাচ্ছি, এর শেষ কোথায়! এর চেয়ে লজ্জার কী হতে পারে! তাই আসুন, সবাই মিলে এ সন্ত্রাসবাদ প্রতিহত করি। এ সময় জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় গেলে দেশে শান্তি ফিরে আসবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। আজ শনিবার বিকেলে জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয় চত্বরে ‘সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে, রুখে দাঁড়াও একসাথে’ শীর্ষক এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ আবুল হোসেন বাবলার সভাপতিত্বে সমাবেশে দলের মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপিসহ কেন্দ্রীয় নেতারা বক্তব্য দেন।
এরশাদ বলেন, সরকার জনগণের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয়েছে। আমার শাসনামলে এমন হত্যা ও সন্ত্রাসী কর্মকা- হয়নি। তাই দেশে শান্তি ফিরিয়ে আনতে দরকার জাতীয় পার্টির সরকার।  যতোদিন শান্তি ফিরে আসবে না, ততোদিন সমাবেশ চলবে বলে ঘোষণা দিয়ে তিনি বলেন, দেশের মানুষ হত্যার শিকার হচ্ছেন। বিদেশিদের গলা কেটে হত্যা করা হচ্ছে। সাধারণ মানুষ আজ অনিরাপদ। এর চেয়ে লজ্জার কী আছে!
সমাবেশে দেশে কী কারণে এমন নৃশংস সন্ত্রাসী কর্মকা- হচ্ছে তা খুঁজে বের করার আহ্বান জানান জাতীয় পার্টির সিনিয়র কোচেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ। কর্মসংস্থান বৃদ্ধি, পুলিশের সেবা কার্যক্রম প্রসারিত করাসহ নানা পদক্ষেপ নেওয়ার পরামর্শ দিয়ে বলেন, আমাদের রাজনৈতিক ঘাটতি রয়েছে। একে অন্যের সঙ্গে সম্প্রীতির বন্ধন দুর্বল। সামাজিক বেষ্টনী নেই, তা তৈরি করতে হবে। এসবের ফাঁকে বিপথগামীরা ঢুকে যায়। ফলে দেশে হত্যাযজ্ঞসহ নানা সন্ত্রাসী অপকর্মের ঘটনা ঘটে। গোয়েন্দা বিভাগকেও আরও শক্ত ভূমিকা রাখতে হবে।
দলের কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের বলেন,  আজ সাধারণ মানুষকে যদি জিজ্ঞাসা করা হয়, তাহলে উত্তর আসবে, শান্তি চাই। দেশের সবাই মিলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এ সন্ত্রাসকে প্রতিরোধ করতে হবে। এটি আর ছোট বিষয়ের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। কেননা, সন্ত্রাসী কর্মকা- চলতে থাকলে বিদেশিরা মুখ ফিরিয়ে নেবেন। দেশের অর্থনীতি মুখ থুঁবড়ে পড়বে। তাই যেকোনো উপায়ে সন্ত্রাসবাদকে রুখতে হবে।

আপনার মতামত লিখুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ